প্রচ্ছদ - রাজনীতি - সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮

নির্বাচন হবে, কেউ ঠেকাতে পারবে না : প্রধানমন্ত্রী

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন যথাসময়েই হবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কেউ সেই নির্বাচন ঠেকাতে পারেব না।

বঙ্গোপসাগরের উপকূলবর্তী সাত দেশের জোট বিমসটেকের চতুর্থ শীর্ষ সম্মেলন শেষে ঢাকায় ফিরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের প্রশ্নোত্তর পর্বে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

রোববার বিকালে গণভবনে অনুষ্ঠিত এ সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারতসহ পৃথিবীর অনেক গণতান্ত্রিক দেশে সংসদ বহাল রেখেই নির্বাচন হয়। নতুন সরকার আসার পর সেটা স্বাভাবিক নিয়মেই শেষ হয়ে যায়। এখানেও তাই হবে।

‘বিএনপি যতোই হুংকার দিক, আন্দোলন করুক না কেন, যথাসময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কেউ তা ঠেকাতে পারবে না।’

এসময় ইভিএম নিয়েও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন: ‘বিএনপি এর বিরুদ্ধে খুব সোচ্চার। তারা করচুপির ভালো টেকনিক জানে। ইভিএম ব্যবহার করলোতো আর কারচুপি করতে পারবে না।’

‘অামরা নির্বাচন নিয়ে অনেক গবেষণা করেছি কিন্ত আমরা এখনো তাদের সেই পদ্ধতিটা ধরতে পারিনি। তাদের অর্থের অভাব নেই তারা সবকিছু কিনতে পারে। ইইভএম হলে তার একটার জায়গায় দুটো তিনটা সিল মারতে পারবে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা চাই প্রযুক্তির উন্নয়নের জন্য ইভিএমের ব্যবহার শুরু হোক। এটাইতো শেষ কথা না। এতে আপত্তির কী আছে এতো। এখন যদি অনলাইননে টাকা পাঠাতে পারেন তাহলে ভোট দিতে পারবে না কেনো। সবচেয়ে মূল্যবান হলো অর্থ। সেটার উপর বিশ্বাস করতে পারলে ভোটের উপর নয় কেন।’

তবে তাড়াহুড়া করে ইভিএমকে চাপিয়ে দেয়া যাবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন: নির্বাচনের ক্ষেত্রে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। আমাদের সবাই এখন অনলাইনে সবকিছু করছি। এটা ঠিক যে টেকনোলজির যেমন সুবিধা দেয়। তেমনি অসুবিধাও আছে। তবে তাড়াহুড়া করে এটাকে চাপিয়ে দেয়া যাবে না।

গত মঙ্গলবার ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে সংসদ নির্বাচনের কথা জানিয়ে সেই নির্বাচনে অন্তত ১০০ আসনে ইভিএম ব্যবহারের কথা জানায় ইসি সচিব।

এই প্রস্তাবকে দুরভিসন্ধিমূলক দাবি করে সরাসরি নাচক করে দিয়েছে বিএনপি। দলটি বলছে, এটা ষড়যন্ত্রমূলক প্রস্তাব।

অবশ্য ক্ষমতাসীন দল ইভিএম ব্যবহারের পক্ষে অবস্থান নিয়ে বলছে, ইভিএম এখন একটা আধুনিক ভোটিং সিস্টেম। উন্নত গণতান্ত্রিক দেশে এ পদ্ধতি চালু আছে।

এর আগে ইসি’র সঙ্গে সংলাপে বিএনপিসহ বেশিরভাগ রাজনৈতিক দলই নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের বিরোধিতা করেছিল।

তারপরও গত বৃহস্পতিবার আগামী সংসদ নির্বাচনে ব্যবহারে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ-আরপিও সংশোধনের উদ্যোগ নিলে ভিন্নমত পোষণ (নোট অব ডিসেন্ট) করে নির্বাচন কমিশন-ইসি’র সভা বর্জন করেন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

তবে এমন আপত্তির মুখেও ওইদিন আরপিও সংশোধনের প্রস্তাব চূড়ান্ত করে ইসি।

 


আরও পড়ুন

1 Comment

  1. I simply want to mention I am just beginner to blogging and honestly enjoyed your page. Almost certainly I’m want to bookmark your website . You amazingly have exceptional well written articles. Many thanks for sharing with us your website.

Comments are closed.