‘ইভিএম কেনার প্রকল্প আগামী একনেক বৈঠকে উঠবে’ : পরিকল্পনামন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট , মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ
সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮ ৯:১৯ অপরাহ্ণ

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ক্রয় ও ব্যবহারে নির্বাচন কমিশনের প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আগামী বৈঠকে উঠবে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেকের বৈঠকে শেষে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছে বিএনপিসহ সরকারের বাইরে থাকা বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল। গত ২৮ আগস্ট রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে কমিশনের সচিব হেলালউদ্দিন আহমেদ ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনার কথা জানান। ইসি সচিব বলেছিলেন, নির্বাচন আইনের সংস্কার, রাজনৈতিক দলের মতামতসহ সবকিছু ঠিক থাকলে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এক তৃতীয়াংশ আসনে ইভিএম ব্যবহার করবে নির্বাচন কমিশন। এসব মেশিন ক্রয়ের জন্য খরচ হবে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা। এজন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের জন্য প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি ৩ হাজার ৮২১ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘নির্বাচন ব্যবস্থাপনায় অধিকতর স্বচ্ছতা আনয়নের লক্ষ্যে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ক্রয়, সংরক্ষণ ও ব্যবহার’ শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে প্রস্তাব পাঠিয়েছে ইসি। প্রকল্পটির উদ্দেশ্য হলো ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়াকে স্বচ্ছ, ত্রুটিমুক্ত, বিশ্বাসযোগ্য ও আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর করা। নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ১ লাখ ৫০ হাজার ইভিএম ব্যবহারের মাধ্যমে নির্বাচনী ফলাফলে বিশ্বাসযোগ্যতা বৃদ্ধি করা।

একনেকের বৈঠক শেষে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘ইভিএম ব্যবহারে নির্বাচন কমিশন আমাদের কাছে প্রকল্প পাঠিয়েছে। আগামী একনেকের বৈঠকে এই প্রকল্প উঠবে। আমরা এই প্রকল্প অনুমোদন দেব।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মুস্তফা কামাল বলেন, ইভিএমের জন্য যেসব টাকা অনুমোদন দেওয়া হবে তার একসঙ্গে দেওয়া হবে না। এসব টাকা ফেইজ (ধাপে ধাপে) আকারে দেওয়া হবে।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমি আশা করি আরপিও সংশোধন হবে। জাতীয় নির্বাচনে পরীক্ষামূলক হলে ইভিএম ব্যবহার হবে। তবে এটা নির্ভর করতে ইসির ওপর। তারা যেভাবে চাইবে সেভাবে হবে।’

সমীক্ষা যাচাই না কিভাবে ইভিএম প্রকল্প একনেকে উঠবে এমন প্রশ্নে মুস্তফা কামাল বলেন, এটার সমীক্ষা যাচাইয়ের দরকার নেই। নির্বাচন কমিশন ইভিএম আগে ব্যবহার করেছে। এখন নির্বাচন কমিশন টাকা চেয়েছে। আমরা প্রকল্প অনুমোদন দেব। এটা দেখবে নির্বাচন কমিশন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া