বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপ

স্পোর্টস রিপোর্ট , মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ
সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৮ ৩:৫০ অপরাহ্ণ

অপেক্ষার পালা শেষ। ১৪তম এশিয়া কাপের পর্দা উঠছে আজ। বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে এশিয়ার মহারণ। মরুর বুকে আজ থেকে ব্যাট-বলের উত্তাপ ছড়াবেন এশিয়ার জায়ান্টরা। দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হবে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ।

তিন আসর পর এশিয়া কাপ সরেছে বাংলাদেশ থেকে। ২০১২, ২০১৪ এবং ২০১৬ সালে টানা তিনবার এশিয়া কাপ বাংলাদেশে আয়োজন করে এসিসি। বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়ায় প্রত্যেকবারই এসিসির আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে আয়োজকদের পাশাপাশি ক্রিকেটাররাও ছিলেন সফল।

তিন আসরে বাংলাদেশ দুবারই খেলেছিল ফাইনাল। শিরোপা জিততে না পারলেও বাংলাদেশ নিজেদের দাপট দেখিয়েছে প্রতিটি আসরে। এবার সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের।

ছয় দলের এশিয়া কাপে বাংলাদেশ রয়েছে ‘বি’ গ্রুপে। গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গী শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তান। ‘এ’ গ্রুপে আছে ভারত, পাকিস্তান ও বাছাইপর্ব খেলে আসা দল হংকং। সেরা দুই দল ২৮ সেপ্টেম্বর দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফাইনালে মুখোমুখি হবে।

ওয়ানডে ফরম্যাটে এশিয়া কাপ সবথেকে বেশি ঘরে তুলেছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা। দুই দল পাঁচবার করে জিতেছে শিরোপা। পাকিস্তান জিতেছে দুবার। এবার কি বাংলাদেশের পালা? ২০১২ সালে মাত্র ২ রানের জন্য হারিয়েছিল শিরোপা। নয়তো ৬ বছর আগেই শিরোপার ক্ষুধা মিটে যেত টাইগারদের।

শিরোপা জেতার মিশনেই নামবে মাশরাফির দল। গতকাল দুবাইয়ে ট্রফি উন্মোচনের অনুষ্ঠান শেষে ছয় দলের অধিনায়ক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বাংলাদেশের দলপতি  বলেছেন, ‘শুরুটা ভালো করতে চাই। আমরা কিভাবে শুরু করছে সেটার ওপর নির্ভর করছে এশিয়া কাপে আমাদের যাত্রা। শ্রীলঙ্কাকে হারাতে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। আমরা যদি শুরুটা ভালো করি তাহলে আমাদের অনেক দূর যাওয়া সম্ভব।’

ওয়ানডেতে মুখোমুখি লড়াইয়ে এখনো পর্যন্ত মোট ৪৪ বার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। যার মধ্যে ৩৬ ম্যাচে শ্রীলঙ্কা ও ৬ ম্যাচে জয়ের দেখা পেয়েছে টাইগাররা। তাছাড়া দুটি ম্যাচের নিষ্পত্তি ঘটেছে ফলাফল ছাড়াই। তবে পরিসংখ্যানের সঙ্গে বর্তমান পারফরম্যান্সের চিত্র ভিন্ন। র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে শ্রীলঙ্কার থেকে। আর সাম্প্রতিক সময়ে শ্রীলঙ্কার কঠিন প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ। তাই আজকের ম্যাচে পরিসংখ্যান কোনো প্রভাব ফেলবে না ধরে নেওয়াই যায়।

২৩ বছর আগে ১৯৯৫ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে সর্বশেষ খেলেছে বাংলাদেশ। এরপর আর জাতীয় দল কখনই খেলেনি। পিএসএল, টি-১০ লিগ খেলার সুবাদে সাকিব, মাহমুদউল্লাহ ও তামিমদের ওখানে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। আজ মরুর বুকে শুরুটা ভালো হলে পুরো এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দুর্দান্ত খেলবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। মাশরাফিরা শ্রীলঙ্কা বধের স্বপ্ন দেখছেন। কাজটা কঠিন হলেও অসম্ভব নয়।

Comments are closed.