কিশোরগঞ্জের উন্নয়ন মেলায় ‘আশা’

‘উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে ৪-৬ অক্টোবর দেশব্যাপী জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা। এরই অংশ হিসেবে কিশোরগঞ্জ জেলার পুরাতন স্টেডিয়ামে আয়োজিত জাতীয় উন্নয়ন মেলায় বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি অংশগ্রহণ করে এনজিও প্রতিষ্ঠান আশা। উন্নয়ন মেলায় তারা তাদের স্বাস্থ্য কর্মসূচিকে তুলে ধরেছে।

স্বাস্থ্য কর্মসূচিসমূহের মধ্যে ছিল- বিনামূল্যে ডায়াবেটিস পরীক্ষা, প্রেসার মাপা, ওজন মাপা ও ফিজিওথেরাপী দেওয়া।

মেলার তৃতীয় দিনে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য জনাব সুবীর কিশোর চৌধুরী, কিশোরগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মোঃ আক্তার জামীলসহ জেলার বিভিন্ন কর্মকর্তাগণ আশার স্টলসহ মেলার স্টলসমূহ ঘুরে দেখেন। এসময় আশার পক্ষ থেকে তাদেরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

আশা কিশোরগঞ্জ জেলার ডিষ্ট্রিক্ট ম্যানেজার জনাব মোঃ আতাউর রহমান জানান, মেলা চলাকালীন সময়ে তারা প্রায় ৬১৫জন রোগীকে আশার পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করেছেন।

উল্লেখ্য যে, আশা কিশোরগঞ্জ জেলার ৬টি ব্রাঞ্চে সমন্বিত স্বাস্থ্য কর্মসূচি চালু রয়েছে। যেখানে ৩৬জন স্বাস্থ্য কর্মী প্রতিনিয়ত মাঠ পর্যায়ে সদস্যদের এই সেবা দিয়ে আসছে। তাছাড়া কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার পুরুড়া বাজার ব্রাঞ্চে আশার নিজস্ব স্বাস্থ্য ক্লিনিক রয়েছে। যেখানে ১ জন মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট, ১ জন প্যারামেডিক ও ৬ জন স্বাস্থ্য সহকারী রয়েছে।

আশা কিশোরগঞ্জ জেলায় স্বাস্থ্য কর্মসূচি ছাড়াও মোট ৬৬টি ব্রাঞ্চে ৪৬২ জন কর্মী দ্বারা প্রায় ৬৯ হাজার গ্রাহকের মাঝে ঋণ সেবা কর্মসূচি পরিচালনা করছে। ১০টি ব্রাঞ্চে ১৫০টি শিক্ষা কেন্দ্র দ্বারা ৪ হাজার ৫শত জন ছাত্র-ছাত্রীর মাঝে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।


আরও পড়ুন