করিমগঞ্জ - November 3, 2018

কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসন থেকে লাঙ্গল সরানোর চেষ্টা করবে কিশোরগঞ্জ জেলা আঃলীগ

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে জেলহত্যা দিবসের আলোচনা সভায় এবার করিমগঞ্জ তাড়াইলের জনগণের কাঁধ লাঙ্গল সরানোর চেষ্টা করবে বলে সভায় বক্তব্য দিয়েছেন কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজানা।

আজ শনিবার (৩ নভেম্বর) করিমগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে জেলহত্যা দিবসের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে করিমগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন- আগে নিজেদের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টি করুন। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যদি মহাজোট হয় আমরা সেই মহাজোটের বিরোধীতা করবোনা।

বক্তব্যের শুরুতে তিনি জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে তাদের অনিস্বীকার্য অবদানের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

এসময় তিনি আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীদের বহুদিনের দাবি করিমগঞ্জ-তাড়াইলে নৌকা ও দলীয় প্রার্থী চাই সম্পর্কে বলেন, বহু বছর ধরে করিমগঞ্জের জনগণের কাঁধে লাঙ্গল ঝুলে আছে, এবার চেষ্টা করবো লাঙ্গলটা অন্য কোথাও দিয়ে জনগণকে কাঁধমুক্ত করতে।

আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নন চিত্র জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। প্রয়োজনে গ্রামে গ্রামে উঠান বৈঠক করে শেখ হাসিনার বলিষ্ট নেতৃত্বের কথা জনগণকে জানাতে হবে এবং বলতে হবে বাংলার মানুষের ভাগ্যন্নোয়নের জন্য আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি শেখ হাসিনা সরকারকে ক্ষমতায় আনতে হবে তানাহলে মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তি জামায়েত বিএনপি ক্ষমতায় এলে এদেশকে তারা পাকিস্থানী জঙ্গী রাষ্ট্রেতে পরিনত করবে।

উপজেলা যুবলীগ নেতা ও বারঘরিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কামরুল আহসান কাঞ্চনের সঞ্চালণায় করিমগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান মিজানের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, আগামী নির্বাচনে করিমগঞ্জ-তাড়াইলে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশি, দুইবারের সাবেক সাংসদ ড. মিজানুল হক, কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক বিলকিছ বেগম, করিমগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হারুন অর রশিদ, জেলা আওয়ামী আইনজীবি পরিষদের সদস্য ও আগামী সংসদ নির্বাচনে করিমগঞ্জ-তাড়াইলে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশি এ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হক মাখন, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান চাঁন মিয়া, করিমগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী আব্দুল কাইয়ূম, কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল গণি ঢালী লিমন, কিশোরগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলী, করিমগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির স্বপন, করিমগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক সরকার জাহাঙ্গীর সিরাজী, করিমগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন-আহ্বায়ক রাফিকুজ্জামান জর্নেলসহ উপজেলার ১১ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ।

সভায় বক্তারা বর্তমান মহাজোট সরকারের করিমগঞ্জ-তাড়াইলের জাপা মনোনীত সংসদ সদস্যের সমালোচনাকরে বলেন আজকে থেকে লাঙ্গলকে করিমগঞ্জ-তাড়াইল থেকে বয়কট করলাম ও আগামী নির্বাচনে করিমগঞ্জ -তাড়াইলে লাঙ্গলকে মেনে নেয়া হবেনা। সেই সাথে জেলা নেতৃবৃন্দের কাছে আহ্বান জানান যেন এ আসনে আগামী নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থীসহ নৌকা মার্কা দেয়া হয়।

আলোচনা শুরুর আগে আজকের সভার প্রধান উদ্যোক্তা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলীর উদ্যোগে সাবেক রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের সুযোগ্য পুত্র জনপ্রশাসন মন্ত্রীর নামে এতিমখানার নামফলক উন্মোচন করেন আগত অতিথিরা।


আরও পড়ুন