অক্টোবরে শিশুসহ ৩২ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরায়েল

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট , এশিয়া
নভেম্বর ৪, ২০১৮ ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকা ও পশ্চিমতীরে ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারিয়েছে ৬ শিশুসহ অন্তত ৩২ জন ফিলিস্তিনি নাগরিক। আর আহত হয়েছেন ২ হাজারেরও বেশি। মধ্যপ্রাচ্যের সংবাদভিত্তিক ব্রিটিশ পর্যবেক্ষণ ওয়েবসাইট মিডল ইস্ট মনিটরের এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

১৯৭৬ সালের ৩০ মার্চ ইসরায়েলের দখলদারিত্ব থেকে নিজেদের মাতৃভূমির দখল ঠেকাতে বিক্ষোভে নামলে ইসরায়েলি সেনাদের হাতে  নিহত হন ৬ ফিলিস্তিনি। পরের বছর থেকেই ‘গ্রেট মার্চ অব রিটার্ন’  নামে ধারাবাহিক কর্মসূচি শুরু করে ফিলিস্তিনিরা। গতকাল ৩১তম শুক্রবারে ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে অন্তত ৫ জন নিহত হয়েছেন। এনিয়ে এবছরে এই কর্মসূচিতে নিহতের সংখ্যা দুই শতাধিক ছাড়িয়েছে।

ফিলিস্তিনি লিবারেশন অর্গানাইজেশন পিএলও সংশ্লিষ্ট আব্দুল্লাহ আল হোরানি রিসার্চ সেন্টার কর্তৃক প্রকাশিত পরিসংখ্যানে বলাহয়, গত মাসে নিহতদের মধ্যে ইসরায়েলি হেফাজতে মৃত্যুবরণ করা উইসাম শালাদেহও রয়েছেন।এখনও ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের কাছে দুইটি মরদেহ রয়েছে। ইসরায়েলের দাবি, ছুরিকাঘাতের চেষ্টা করার প্রতিক্রিয়ায় তাদের হত্যা করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়,অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ১৯১৬ জন ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন। আর পশ্চিমতীর ও পূর্ব জেরুজালেমে আহত হয়েছেন ২৫০ জন। এছাড়া অক্টোবরে পশ্চিম তীর, গাজা উপত্যকা ও পূর্ব জেরুজালেম থেকে ৫২৫ জন ফিলিস্তিনিকে আটক করেছে ইসরায়েল।

ইসরায়েলের অন্যান্য অপরাধের মধ্যে বসতি স্থাপনের কথা বলা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, অক্টোবরে ৫৬টি ফিলিস্তিনি ভবন ভেঙে ফেলে ইসরায়েল। এর মধ্যে আল তাহাদি স্কুলও ছিলো।  আরও কয়েক হাজার বসতি স্থাপনের অনুমতি দিয়েছে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া