পাকুন্দিয়া - নভেম্বর ৭, ২০১৮

হুইল চেয়ার ও প্রতিবন্ধী ভাতা পেল পাকুন্দিয়ার প্রীতি রানী

ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় খবর প্রকাশের পর পাকুন্দিয়ার শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রীতি রানী সূত্রধর হুইল চেয়ার ও প্রতিবন্ধী ভাতা কার্ড পেয়েছে। প্রীতি রানী সূত্রধর উপজেলার চরফরাদী ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবা সজল কুমার সূত্রধর পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি, মা জয়ন্তী রানী সূত্রধর গৃহিনী।

অভাব-অনটনের সংসারে শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রীতি রানী সূত্রধরই তাদের একমাত্র সন্তান। একমাত্র সন্তান শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় চলাফেরা করতে পারে না। এ নিয়ে তারা অনেকের কাছে সহযোগিতা চেয়ে পায়নি। কোন সহযোগিতা না পেয়ে পরিবারের সদস্যরা হতাশায় ভুগছিলেন।

এ বিষয়ে সম্প্রতি ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় খবর প্রকাশিত হলে খবরটি নজরে পড়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) উপসচিব তরফদার মো. আক্তার জামীল এর। তিনি প্রীতি রানীর জন্য একটি হুইল চেয়ার ও প্রতিবন্ধী ভাতা বই এর জন্য উদ্যোগ নেন।

মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) উপসচিব তরফদার মো. আক্তার জামীল, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. কামরুজ্জামান খান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান মির্জাপুর গ্রামে প্রীতি রানী সূত্রধরের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে হুইল চেয়ার ও প্রতিবন্ধী ভাতা কার্ড তুলে দেন তার হাতে।

এ সময় পাকুন্দিয়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন, জেলা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের ক্লিনিক্যাল ফিজিও থেরাপিষ্ট ডা. মো. তামীম হোসাইন, বাংলাদেশ রবিদাস উন্নয়ন পরিষদের কেন্দ্রিয় সভাপতি দিলিপ রবিদাস, আরটিভির জেলা প্রতিনিধি তানভীর হায়দার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 


আরও পড়ুন

২ Comments

Comments are closed.