আয়কর মেলা : ৪ দিনে রাজস্ব আয় ১২০০ কোটি

ডেস্ক রিপোর্ট , মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ
নভেম্বর ১৬, ২০১৮ ১০:১৫ অপরাহ্ণ

সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলায় চারদিনে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ১ হাজার ২৬৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। মেলায় চারদিনে সেবা নিয়েছেন প্রায় ৯ লাখ করদাতা। রিটার্ন জমা দিয়েছেন ২ লাখ ৬১ হাজার। আর কর সনাক্তকরণ নম্বর (ই-টিআইএন) নিয়েছেন ১৯ হাজারেরও বেশি। চতুর্থ দিনের আয়কর মেলা শেষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

মেলার চতুর্থ দিন শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় কেন্দ্রীয়ভাবে রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে বসা সবচেয়ে বড় আয়কর মেলায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। করদাতাদের মধ্যে ছিল উৎসাহ আর উদ্দীপনা। বিশেষত, দিনটিতে ছিল তরুণ করদাতাদের সরব উপস্থিতি। ‘উন্নয়ন ও উত্তরণ, আয়করের অর্জন’ স্লোগানে শুরু হওয়া এবারের মেলার প্রতিপাদ্য ‘আয়কর প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে সামাজিক ন্যায় বিচার ও ধারাবাহিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ’। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সব ধরনের সেবা মিলছে মেলায়।

এনবিআরের তথ্যমতে, আয়কর মেলায় চারদিনে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ১ হাজার ২৬৭ কোটি ৫৬ লাখ ৪৮ হাজার ৮১৯ টাকা। গত বছরের একই সময়ে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ২০১ কোটি ৩৭ লাখ ৫ হাজার ৩৪০ টাকা। রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ বেড়েছে ৬৬ কোটি ১৯ লাখ ৪৩ হাজার ৪৯৭ টাকা। এক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি ৫ দশমিক ৫১ শতাংশ।

আর মেলার চতুর্থ দিনে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ২৫৩ কোটি ১৫ লাখ ৮১ হাজার ৫৪০ টাকা। গত বছরের একই দিনের তুলনায় এক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি ১৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ। আর মেলার চারদিনে সেবা নিয়েছেন ৮ লাখ ৯৯ হাজার ৬৫৫ জন করদাতা। গত বছরের তুলনায় ৫২ শতাংশ বেশি মানুষ সেবা নিয়েছেন। রিটার্ন দাখিল করেছেন ২ লাখ ৬১ হাজার ২৪৩ জন।

গত বছরের চারদিনে রিটার্ন জমা দিয়েছিলেন ১ লাখ ৬৩ হাজার ৬৮৯ জন। এক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি ৫৯ দশমিক ৫৯ শতাংশ। চারদিনে নতুন ই-টিআইএন নিয়েছেন ১৯ হাজার ৪১৫ জন।

গত বছরের তুলনায় নতুন নিবন্ধনকারী করদাতার সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ১৪ হাজার। এক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি ২৪০ শতাংশ।

শিক্ষার্থীদের নিয়ে মেলার চতুর্থ দিনেও হয় কর শিক্ষণ ফোরাম। ঢাকা মেডিকেল কলেজের ৪০ শিক্ষার্থী এতে অংশ নেয়। তাদের কর বিষয়ে নানা প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। পরে তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। জয়ী ১০ জনের হাতে পুরস্কার তুলে দেন এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। আয়কর মেলায় নতুন কর সনাক্তকরণ নম্বর (ই-টিআইএন) নেয়াসহ কর সংক্রান্ত সব ধরনের সেবা পাওয়া যাচ্ছে।

কেন্দ্রীয়ভাবে মেলা চলবে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। মুক্তিযোদ্ধা, প্রবীণ ও নারীদের জন্য আলাদা বুথসহ বাড়তি সুবিধা হিসেবে যাতায়তের জন্য থাকছে শাটল বাসের ব্যবস্থা। এ ১৫টি শাটল বাস চলবে রাজধানীর টিএসসি, রামপুরা, বেইলি রোড, মতিঝিল, মিরপুর ও উত্তরা রোডে।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ/এন

 

1 Comment
  1. click here to investigate says

    I simply want to say I’m all new to blogs and certainly savored your page. More than likely I’m likely to bookmark your blog . You really have fabulous stories. Thanks a bunch for sharing your web page.

Comments are closed.

সর্বশেষ পাওয়া