আইন আদালত - নভেম্বর ২০, ২০১৮

তিন মাস পর কারামুক্ত শহিদুল আলম

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনে করা মামলায় গ্রেফতার হওয়া আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী ড. শহিদুল কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কেরাণীগঞ্জে অবস্থিত কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তাকে মুক্তি দেয়া হয়।

এরআগে বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) জামিন আবেদনের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে বিচারপতি শেখ আবদুল আউয়াল ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

গত ৬ নভেম্বর আইসিটি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলম হাইকোর্টে আবার জামিনের আবেদন করেন। এর আগে ২৯ অক্টোবর শহিদুল আলমের জামিন আবেদন কার্যতালিকা থেকে বাদ দেয় হাইকোর্টের অন্য একটি বেঞ্চ। ৭ অক্টোবর আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে কেন জামিন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট।

এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফায় হাইকোর্টে এই জামিনের আবেদন করেছিলেন শহিদুল আলম। এ ছাড়া এ মামলায় শহিদুল আলমের একটি জামিন আবেদন নিম্ন আদালতে বিচারাধীন থাকা অবস্থায় ২৮ আগস্ট হাইকোর্টে প্রথম দফায় জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়।

সহপাঠীর নিহতের ঘটনায় বিচার দাবি ও নিরাপদ সড়ক চেয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের বিষয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরায় বক্তব্য দিয়েছিলেন শহিদুল আলম। সেই বক্তব্যকে কেন্দ্র করে ৫ আগস্ট রাতে রাজধানীর ধানমন্ডির বাসা থেকে শহিদুলকে আটক করে ডিবি পুলিশ।

পরে ফেসবুক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা করা হয়।


আরও পড়ুন