খেলার খবর - নভেম্বর ২৪, ২০১৮ ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ

২০৪ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

এই উইকেটে ব্যাটিং করা কঠিন। তারপরও আরেকটু বেশি রান করতে চেয়েছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংটা তেমন ভালো হয়নি টাইগারদের। ১২৫ রানেই গুটিয়ে গেছে তাদের ইনিংস।

তারপরও উইকেট যেমন স্পিন বান্ধব, তাতে আশাবাদি হতেই পারে স্বাগতিকরা। প্রথম ইনিংসে ৭৮ রানের বড় লিডের সুবাদে ক্যারিবীয়দের সামনে দুইশোর্ধ্ব লক্ষ্য ছুড়ে দিতে পেরেছে সাকিব আল হাসানের দল। চট্টগ্রাম টেস্টে জিততে হলে ২০৪ রান করতে হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।

৫৫ রানে ৫ উইকেট নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু। শুরুতেই ধাক্কা স্বাগতিকদের, মুশফিকুর রহীমের মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বসে টাইগাররা।

স্পিনাররা উইকেট থেকে টার্ন পাচ্ছেন। তবে মুশফিক স্পিনে পরাস্ত হননি। ক্যাবিরীয় পেসার শেনন গ্যাব্রিয়েলের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে স্ট্যাম্প উড়ে গেছে তার। ৩৯ বলে ১ বাউন্ডারিতে ১৯ রান করেন তিনি।

এরপর সপ্তম উইকেটে ৩৭ রানের গুরুত্বপূর্ণ একটি জুটি গড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আর মেহেদী মিরাজ। জুটিটি ভাঙেন দেবেন্দ্র বিশু, ১৮ রান করা মিরাজকে টার্নে উইকেটরক্ষক শেন ডোরিচের ক্যাচ বানিয়ে।

অভিষিক্ত নাঈম হাসানকেও ৫ রানে ফিরিয়েছেন বিশু। ক্যারিবীয় লেগস্পিনারের ফ্লাইটেড ডেলিভারিটি বুঝতে না পেরে ব্যাট চালিয়ে দেন নাঈম, স্লিপে দাঁড়িয়ে ক্যাচটি নিতে ভুল করেননি শাই হোপ।

দারুণ খেলছিলেন মাহমুদউল্লাহ, বলতে গেলে একাই দলকে টেনে নিচ্ছিলেন। শেষপর্যন্ত তাকেও থামিয়ে দেন এই বিশু। সুইপ করতে গিয়ে টপএজ হয়ে যান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ৪৬ বলে ১টি করে চার ছক্কায় ৩১ রান করেন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এটিই সর্বোচ্চ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে ২৬ রান খরচায় ৪টি উইকেট নিয়েছেন দেবেন্দ্র বিশু। রস্টন চেজ ৩টি আর জোমেল ওয়ারিকেন নেন ২টি উইকেট।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ/এন