কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে মহাজোটের প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ, অবৈধ ৫ জনের

মোঃ আব্দুল জলিল , করিমগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ
ডিসেম্বর ২, ২০১৮ ৬:০৪ অপরাহ্ণ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে পাঁচ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। আজ রোববার (২ ডিসেম্বর) সকালে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল বলে ঘোষণা করেন।

মনোনয়ন বাতিল হওয়া প্রার্থীরা হলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী) ড. মিজানুল হক, স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুজ্জামান নয়ন, স্বতন্ত্র প্রার্থী আম্মান খাঁন, কমিউনিস্ট পার্টির ডাঃ এনামূল হক ইদ্রিছ, বিএনপি মনোনীত সহকারি প্রার্থী সাইফুল ইসলাম সুমন ভিপি।

ড. মিজানুল হকের মনোনয়ন ফরমে নিজেকে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী উল্লেখ করায়, সাইফুল ইসলাম সুমন মনোনয়ন ফরমে স্বাক্ষর/ শিক্ষা সনদ না থাকা ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে পদ বহাল থাকায়, কমিউনিস্ট পার্টির এনামূল হক ইদ্রিছের মনোনয়ন ফরমে স্বাক্ষর না থাকায় ও অপর দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী মোজাম্মেল হক নয়ন এবং আম্মান খাঁন এর মনোনয়ন ফরমে ত্রুটি থাকায় তাদের মনোনয়ন ফরম বাতিল ঘোষনা করা হয়।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য কিশোরগঞ্জ-৩ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ বিভিন্ন দলের ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এদের মধ্যে ৬ জনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষিত প্রার্থীরা হলেন, মহাজোটের জাতীয় পার্টির মো. মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মো. আলমগীর হোসাইন, বিএনপি মনোনীত জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট জালাল মোহাম্মদ গাউস, গণতন্ত্রী পার্টির দিলোয়ার হোসাইন ভুঁইয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর মো. শওকত আলী।

জেলা রিটানিং অফিসার মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী জানান, বাছাইয়ে উত্তীর্ণ হওয়ার পরও কেউ প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে চাইলে আগামী ৯ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। এই পর্বের পর ১০ ডিসেম্বর প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেবে নির্বাচন কমিশন। এর পর আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারবেন প্রার্থীরা।

উল্লেখ্য, গত ৮ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। পুনঃতফসিল অনুযায়ী, আগামী ৩০ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ। নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৯ ডিসেম্বর। আর প্রতীক বরাদ্দ হবে ১০ ডিসেম্বর।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া