মুক্তিযোদ্ধার কথা - ডিসেম্বর ১০, ২০১৮

আজ বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের শাহাদাতবার্ষিকী

বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী আজ ১০ ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এই দিনে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন তিনি খুলনায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও রাজাকারদের ছোড়া বোমায় দগ্ধ হয়ে শাহাদাতবরণ করেন। এ উপলক্ষে আজ শহীদ বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন নগরে আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল ও দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর খুলনার রূপসা নদীতে মুক্তিযোদ্ধাদের বহনকারী যুদ্ধজাহাজ পলাশের ইঞ্জিন রুমের দায়িত্ব পালনের সময় পাকিস্তানি সেনা ও রাজাকার-আলবদর বাহিনীর ছোড়া বোমা ইঞ্জিন রুমে আঘাত করলে তাতে আগুন ধরে যায়। দগ্ধ রুহুল আমিন ঝাঁপিয়ে পড়েন রূপসা নদীতে। পাড়েও এসে পৌঁছান একসময়। অপেক্ষমাণ রাজাকারের দল বেয়নেট দিয়ে হত্যা করে এই বীরসন্তানকে।

তার তিন মেয়ে জাকিয়া খাতুন, নূরজাহান বেগম, ফাতেমা বেগম ও দুই ছেলে মোহাম্মদ আলী বাহার ও শওকত আলীর মধ্যে মোহাম্মদ আলী বাহার মারা গেছেন।

 

 


আরও পড়ুন