করিমগঞ্জ - December 30, 2018

করিমগঞ্জে ভোট গ্রহন সম্পন্ন, চলছে ভোট গণনা

রবিবার (৩০ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ– ৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) আসনে সুষ্ঠু, সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহন সম্পন্ন হয়েছে।

নির্বাচন চলাকালে কোথায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে এ আসনে নৌকা প্রতীকের কোন প্রার্থী না থাকায় ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি ছিলো তুলনামূলক কম।

ভোটারদের মধ্যে ভোট প্রদানের উৎসাহ, উদ্দীপনাও তেমন পরিলক্ষিত হয়নি। সকাল ৮টায় ভোটগ্রহন শুরু হলেও ভোটকেন্দ্রগুলো ছিল অনেকটাই ফাঁকা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে। করিমগঞ্জ উপজেলার বেশ কয়েকটি ভোট কেন্দ্র সরেজমিনে ঘুরে কোন কেন্দ্রেই ভোটারদের দীর্ঘ লাইন চোখে পড়েনি। বাড়ির কাজকর্ম শেষে একে একে মানুষজন এসে তাদেরও ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

বেলা সোয়া বারটায় করিমগঞ্জের রামনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে গিয়ে কথা হয় প্রিজাইর্ডিং অফিসার হোমায়ূন কবিরের সঙ্গে। তিনি জানান, ওই ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা দুই হাজার নয়শত একাত্তর (২৯৭১)জন। কেন্দ্রে ৩টি ভোট কক্ষে ভোট গ্রহন করা হয়। আর ওই সময় পর্যন্ত ওই কেন্দ্রে শতকরা ৭০ ভাগ ভোট পড়েছে। ওই ভোট কেন্দ্রে করিমগঞ্জ পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ভোট গ্রহন করা হয়। 

পরে বেলা ২ টায় পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের করিমগঞ্জ সরকারি পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় ২/১ জন নারী ভোটার এসে ভোট দিচ্ছেন। এ কেন্দ্রে হোটেল ব্যবসায়ী স্বামী মো. আলমগীর হোসেনের সঙ্গে ভোট দিতে এসেছেন চড়পাড়ার গৃহবধূ লিপি (২৭)। এ সময় তাঁর সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, ভোট কেন্দ্রে তেমন ভীড় নেই। খুব সহজে ভোট দিলাম।

পরে করিমগঞ্জ পৌরসভার ২,৩, ৫ , ৬, ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কেন্দ্র যথাক্রমে কলাতুলী, খুদিরজঙ্গল, নয়াকান্দি, কলেজ কেন্দ্র, বাহাদুরপুর, নয়াপাড়া, আয়লা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের, কেন্দ্রে সরেজমিনে গিয়ে একই চিত্র দেখা যায়। উল্লিখিত কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের তেমন উপস্থিতি নেই। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ৩/৪জন করে লোকজন এসে ভোট দিচ্ছেন।

এ সময় আশুতিয়া পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে কথা হয় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভোটারের সঙ্গে। তিনি জানান, আমার ভোট আগেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। পাঁচ বছর পরও আমি ভোট দিতে পারলাম না।

আশুতিয়া পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইর্ডিং অফিসার জানান, ভোট অত্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। একই কথা বলেন দায়িত্বরত পুলিং অফিসার মোঃ জাকারিয়া জাকি।

কিশোরগঞ্জ–৩ আসনটি জেলার করিমগঞ্জ –তাড়াইল উপজেলা নিয়ে গঠিত। এ আসনে মহাজোটের মনোনীত জাপা (এ) প্রার্থী এডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু (প্রতীক লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী আলমগীর হোসেন (হাতপাখা), ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ড. সাইফুল ইসলাম (ধানের শীষ) ও সিপিবির প্রার্থী ডাঃ এনামুল হক ইদ্রিস (কাস্তে প্রতীক) নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন।


আরও পড়ুন