ক্যাম্পাস - জানুয়ারি ২২, ২০১৯

রাবিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে মানববন্ধন

সরকারী চাকুরীতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম এর ব্যানারে এ কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়।মানববন্ধনে রাবি মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক ধীরাজ
চন্দ্র রায় সঞ্চালনায় মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মুনির হোসেন, রাজশাহী মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সমন্বয়ক পরিষদের আহ্বায়ক সাফকাত মঞ্জুর বিপ্লব, সহকারী কমান্ডার রাজশাহী মহানগর ইউনিট বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার, বঙ্গবন্ধু পরিষদের উপদেষ্টা নাজিম উদ্দীন, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান জ্যাতিবসু বর্মন, মুহতাসিম বিল্লাহ মারুফ, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

পরবর্তীতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও প্রজন্মের পক্ষে মুখপাত্র অমর রায় শুভ ৬ দফা দাবি উত্থাপন করেন। দাবিগুলো হলো, রাজাকার স্বাধীনতা বিরোধী ও তাদের বংশধরদের সরকারী সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি, চাকরীচ্যুত এবং নিয়োগের ক্ষেত্রে অযোগ্য ঘোষনা, সরকারী সকল চাকরীতে ৩০%মুক্তিযোদ্ধা কোটা পূর্ণবহালের, সংরক্ষন,বিশেষ কমিশন গঠন করে প্রিলিমিনারী থেকে শতভাগ বাস্তবায়ন এবং স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকে বর্তমান পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংরক্ষিত পদগুলো বিশেষ নিয়োগের মাধ্যমে পূরণ। জাতির পিতা ও তার পরিবারের বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের
অবমাননা কারীদের বিচার ও দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি ব্যবস্থা নিশ্চিত। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাংবিধানীক স্বীকৃতি ও পারিবারিক সুরক্ষা আইন প্রনয়ণ এবং প্রয়োগ নিশ্চিত।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ চেতনা বিরোধী সকল অপপ্রচার বন্ধ,কোটা সংস্কার আন্দোলন নামে স্ব- ঘোষিত রাজাকার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির বাসভবনে হামলা সহ সকল প্রকার অরাজকতা সৃষ্টিকারী স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে যথাযথ এবং দ্রুত আইনানুক ব্যবস্থা নিশ্চিতসহ সরকারী চাকরীতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও প্রজন্মের বয়সসীমা প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী আনুপাতিক হারে বৃদ্ধি করা। এদিকে দাবি বাস্তবায়ন না হলে কঠোর কর্মসূচির হুশিয়ারী দেন বক্তারা। এর আগে কর্মসূচি শুরুতে কোরআন তিলাওয়াত ও মুক্তিযোদ্ধারে সকল শহীদেরর স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।


আরও পড়ুন

1 Comment

Comments are closed.