কিশোরগঞ্জের খবর - ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

কিশোরগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় প্রেমিক কারাগারে

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে কলেজপড়ুয়া প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রেমিক রুবেল বেলায়েতকে আটক করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাতে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে রুবেলের বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় ধর্ষণ মামলা করলে পুলিশ শনিবার তাকে আটক করে কিশোরগঞ্জ কারাগারে পাঠায়।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের আবদুল হকের মেয়ে নাহিদা আক্তারের সাথে একই গ্রামের বাদল মিয়ার পুত্র রুবেল বেলায়েত স্থানীয় ওয়ার্ড আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করতো। একই বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করতে একই সাথে স্কুলে আসা-যাওয়া করার কালে দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে দু’জনেই এসএসসি পাস করেন। বর্তমানে নাহিদা ভৈরব জিল্লুর রহমান মহিলা কলেজের ইসলাম ও ইতিহাস বিষয়ের ২য় বর্ষে ছাত্রী। এবং রুবেল ভৈরব হাজী আসমত কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিষয়ের ৩য় বর্ষের ছাত্র।

প্রেমিকা নাহিদা জানান, রুবেলের সঙ্গে তার দীর্ঘ সাত বছরের প্রেম। এই সময়ের মধ্যে রুবেল বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে একাধিকবার যৌন সম্পর্কও করেছেন।

কিন্তু গত দুই বছর আগে বিয়ের জন্য চাপ দিলে রুবেল তাকে এড়িয়ে চলা শুরু করে। এ নিয়ে দুজনের সম্পর্কের টানাপড়েনে কয়েক মাস আগে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান তিনি। কিন্তু এতেও রুবেলের মন গলেনি। তবে রুবেল ওই কলেজছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক স্বীকার করলেও শারীরিক সম্পর্কের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বাহালুল খান বাহার মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠকে জানান, প্রেমিক-প্রেমিকা দুজনেই স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থী। বিয়ের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার প্রেমিকা ভৈরব থানায় অবস্থান নিলে ঘটনা জানাজানি হয়। এই সময়ের মধ্যে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে মীমাংসার চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে সবশেষে মামলা পর্যন্ত গড়ায়। ওই মামলায় রুবেলকে কিশোরগঞ্জ জেলে পাঠানো হয়েছে। মেয়েকে তার পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।


আরও পড়ুন