দেশের খবর - ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯

বসন্তের ছোঁয়ায় ফুলের দোকানগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে

আজ বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বসন্ত উৎসব পেরিয়ে পরশু বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ব ভালবাসা দিবস। ব্যস্ত সময় পার করছেন গাইবান্ধার ফুল ব্যবসায়ীরা। বসন্তের ছোঁয়ায় ফুল দোকানগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে। এসব দোকানে বিভিন্ন দামে গোলাপ, রজনীগন্ধা, গাঁদা, বেলি, জবা, সূর্যমুখী, ডালিয়া, হাসনা হেনা, টগরসহ নানা জাতের নানা রঙয়ের বাহারী ফুলের পসরা সাজিয়ে বসেছেন দোকানিরা।তারা আশা করছেন বসন্ত জুড়েই চলবে তাদের বেচা-কেনা।

১৩ ফেব্রুয়ারি বসন্ত উৎসব, ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালবাসা দিবস এবং ২১ ফেব্রুয়ারি মহান আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস ও শহীদ দিবস। এই তিনটি দিবসে ফুলের ব্যাপক চাহিদা থাকে। এ চাহিদা মেটাতে ফুল ব্যবসায়ীরা ফুলের মজুদ বৃদ্ধি করেছেন।

বসন্ত যেন উৎসবেরই একটা ঋতু। সাজ সাজ রবে বসন্তবরণের সঙ্গে সঙ্গে হাজির ভালোবাসা দিবসও। ‘ভালোবাসা দিবস’ একসময় দিনটি শুধুমাত্র প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন এর ছোঁয়া ছড়িয়ে গেছে সবার মধ্যে। সব বয়সীদের জন্য ভালোবাসা প্রকাশের বিশেষ দিন এটি।

বসন্ত উৎসব ও বিশ্ব ভালবাসা দিবসকে সামনে রেখে গাইবান্ধার ফুলের দোকানগুলোতে উপচে পড়া ভীড় দেখা গেছে।শহরের ডিবি রোডে ফুল কিনতে আসা নাবিলা জানান, কাল বসন্ত উৎসব ও পরশু ভালবাসা দিবসের জন্য ফুল কিনছি। ফুল দিয়ে নিজেকে সাজাবো আর বন্ধু-বান্ধবীদের সাথে ফুল বিনিময় করে শুভেচ্ছা জানাবো।

গাইবান্ধা জেলা শহরের ডিবি রোডে ৭-৮টি ফুলের দোকান আছে। এগুলো প্রধান সড়কের পাশেই অবস্থিত। সারাবছর এখানে কমবেশি বিভিন্ন ফুল পাওয়া যায়। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এখানে ফুল আসে। ফুল ব্যবসায়ী নয়ন বলেন, আমাদের দোকানে সারাবছরই ফুলের চাহিদা থাকে। তবে ফেব্রুয়ারি মাসে কয়েকটি দিবস থাকায় ফুলের চাহিদা বেড়ে যায়। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শহীদ দিবসে ফুলের অর্ডার দেয়, তাছাড়া বসন্ত উৎসব আর ভালবাসা দিবসে বিভিন্ন বয়সের ক্রেতাদের ব্যাপক চাহিদা থাকে। আশা করছি এবার আয় ভাল হবে।

ভালোবাসা এমনই এক জাদুকরী শক্তি তা যতই দেওয়া যায় এর গভীরতা ততই বাড়ে। ভালোবাসার এই উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ুক পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধব কিংবা সব সম্পর্কের মধ্যে।ফুলের ছোঁয়ায় প্রিয় বসন্তে ভালবাসার জয় হোক, জয় হোক মনুষ্যত্বের।



আরও পড়ুন