ক্রাইস্টচার্চে মরার ভান করে বেঁচে যান কিশোরগঞ্জের মাসুম

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে উগ্র বর্ণবাদী সন্ত্রাসীর নৃশংস হামলায় ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীর ওমর জাহিদ মাসুম (৩৪)। সবার মতো তিনিও শুক্রবার মসজিদ আল নূরে নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন।

সন্ত্রাসীর একটি গুলি তার পিঠের ওপরে লাগলে তিনি ফ্লোরে লুটিয়ে পড়েন। পেছন থেকে লোকজন ছুটাছুটি করে মিম্বরের দিকে এসে একের পর এক তার ওপর পরে। এ সময় মারা যাওয়ার ভঙ্গিতে রক্তাক্ত মানুষের স্তুপে পড়ে থাকেন তিনি। পুলিশ লাশ সরাতে গিয়ে ওমর জাহিদকে জীবিত পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যায়।

ওমর জাহিদ মাসুম কিশোরগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান দয়ারের কনিষ্ঠ পুত্র। ২০১৫ সালে স্টুডেন্ট ভিসায় নিউজিল্যান্ড যান তিনি। তার দু’বছর পর তার স্ত্রীকে নিয়ে যান। পড়াশোনা শেষ করে সেখানেই একটি সুপার শপ ও একটি পেট্রোল পাম্পে ব্যবস্থাপকের চাকরি করছেন তিনি।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার জুম্মার নামাজে একটু আগে ভাগেই মসজিদে যান মাসুম। তিনি প্রথম কাতারের ইমাম সাহেবের পিছনে মিম্বরের কাছে ছিলেন। পেছন থেকে গুলির শব্দে মুসল্লিরা যখন ছুটাছুটি করছিল মাসুম তখন নুয়ে পড়েন। এ অবস্থায় একটি গুলি তার পিঠের ওপরে লাগলে তিনি ফ্লোরে লুটিয়ে পড়েন।

পেছন থেকে লোকজন ছুটাছুটি করে মিম্বরের দিকে এসে একের পর এক তার ওপর পরে। পুলিশ লাশ সরাতে গিয়ে ওমর জাহিদকে জীবিত পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে তার স্ত্রী হাসপাতালে ছুটে যান। গুলিটি তার পিঠের ওপরে লেগে বেরিয়ে যাওয়ায় তিনি আশ্চর্যজনকভাবে বেঁচে যান।

ওমর জাহিদ মাসুমের ভগ্নিপতি সানা উল্লাহ জানান, সন্ত্রাসী হামলার সংবাদ পেয়ে তাদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করি। ঘটনার বেশ কয়েক ঘন্টা পর মাসুমের স্ত্রী টিনা আক্তার গুলিবিদ্ধ হওয়ার সংবাদ দেয়। হাসপাতাল থেকে রাতেই পুলিশ তাকে বাসায় পৌঁছে দেয়। এখন অনেকটা স্বাভাবিক। তবে বাসা থেকে বের না হতে এবং সাবধানে চলাচলের জন্য জানিয়েছে পুলিশ।


আরও পড়ুন