খেলার খবর - এপ্রিল ১৪, ২০১৯

রুবেল আগে বাংলাদেশের, পরে আবাহনীর

নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে সিরিজ শেষে ফিরে খেলেছিলেন প্রিমিয়ার টি-টোয়েন্টি লিগে, মাঠে নেমেছিলেন পঞ্চাশ ওভারের প্রিমিয়ার লিগেও। কিন্তু পাঁচ ম্যাচের বেশি খেলতে পারেননি সাইড স্ট্রেইন ইনজুরির কারণে। অবশেষে প্রায় আড়াই সপ্তাহ মাঠের বাইরে থেকে পুনরায় খেলার জন্য ফিট হয়েছেন বাংলাদেশ দলের তারকা পেসার রুবেল হোসেন।

তবে যেহেতু বিশ্বকাপ আসন্ন, তাই রুবেলের ক্ষেত্রে বাড়তি ঝুঁকি নিতে চায় না প্রিমিয়ারে তার দল আবাহনী লিমিটেড। আগামীকাল থেকে শুরু হবে ঢাকা লিগের সেরা ছয়ের লড়াই। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের চেয়ে ৪ পয়েন্টে পিছিয়ে রয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিটেড।

তাই সুপার লিগে রুবেলের মতো পরীক্ষিত পারফর্মারকে মাঠে পেলে তা আবাহনীর জন্য বাড়তি অনুপ্রেরণা হিসেবেই কাজ করবে। তবু আবাহনীর আগে রুবেল বাংলাদেশের খেলোয়াড়, এমন যুক্তিতে তাকে ঝুঁকি নিয়ে খেলানোর পক্ষে নন দলটির কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন।

নিজে জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন বলে, দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন বলে- ক্লাবের চেয়ে দেশের প্রয়োজনীয়তাটা ভালোই জানেন সুজন। তাই তো সাফ বলে দিয়েছেন যেহেতু বিশ্বকাপে খেলবেন রুবেল, তাই তাকে পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার সময় দেবে আবাহনী।

আজ নববর্ষের প্রথম দিন শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে নিবিড় অনুশীলনের ফাঁকে সংবাদ মাধ্যমে আবাহনী কোচ সুজন বলেন, ‘আমার দলের সবাই মোটামুটি ফিট শুধু রুবেল বাদে। ও এখনো বোলিং করে নি। আমরাও রুবেলকে কোনো রকম জোর দিচ্ছি না। এত বছর যখন খেলছে, সে নিজের প্রতি সৎ। ও যখনই রেডি হবে তখন খেলবে।’

সুজন আরও বলেন, ‘সামনে বিশ্বকাপ আছে, সেটাও আমাদের জন্য চিন্তার বিষয়। বাংলাদেশ বিশ্বকাপে খেলবে। এটা ক্লাব ক্রিকেট না, এটা দেশের ব্যাপার। গুরুত্ব অবশ্যই বাংলাদেশের দিকে যাবে। এখন যতটুক পারি বিশ্রাম দিয়ে খেলানোর কথাই ভাবছি। যদি সে বোলিং করে নিজেকে ফিট মনে করে এবং ফিজিও যদি সবুজ সংকেত দেয় তাহলে সে খেলবে। তা না হলে পরের ম্যাচে (সোমবার প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে) খেলতে পারবে কিনা আমার সন্দেহ আছে।’

এসময় রুবেলের খেলার সম্ভাবনা কী কারণে কম?- জানতে চাওয়া হলে সুজন জবাব দেন, ‘ফাস্ট বোলারের জন্য সাইড স্ট্রেইন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যখন বল করবেন তখন এই জায়গাটায় চাপ পড়বে বেশি। আমিও চাই না যে ও হালকা ফিট হয়ে খেলুক। যদি রিকভার করে ফুল ফিট হয়ে খেলতে চায়, তাহলে খুবই ভালো। যদি না হয় তাহলে আমরাও জোর করব না খেলার জন্য, আমি চাইবো না। আমি মনে করি রুবেল বাংলাদেশের জন্য অনেক বড় সম্পদ।’


আরও পড়ুন