করিমগঞ্জ - April 16, 2019

করিমগঞ্জে প্রতিপক্ষের ইটের আঘাতে বৃদ্ধা খুন

করিমগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর ইউনিয়নের রৌহা গ্রামে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী কফিল উদ্দিনের ছোঁড়া ইটের আঘাতে ফুল বানু (৭৫) নামের এক বৃদ্ধা মহিলা নিহত হয়েছেন। গত সোমবার রাত ৮.০০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ফুল বানু নিয়ামতপুর ইউনিয়নের রৌহা গ্রামের শুক্কুর মামুদের স্ত্রী। ঘটনার পরপরই অভিযুক্ত পরিবার পলাতক রয়েছে।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রৌহা গ্রামের ফালু মিয়ার ছেলে কফিল উদ্দিনের সাথে প্রতিবেশী আবু বাক্কারের সাথে দীর্ঘ দিনের সীমানা বিরোধের জেরে গত ১ এপ্রিল একই গ্রামের ফালু মিয়ার ছেলে কফিল উদ্দিনের সাথে সীমানা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে কফিল উদ্দিন একটি ইটের টুকরো ছুঁড়ে মারলে তা পাশে থাকা প্রতিপক্ষের ফুল বানুর মাথায় লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই ফুল বানু রক্তাক্ত জখমের কারণে অজ্ঞান হয়ে যায়।

পরে ফুল বানুকে চিকিৎসার জন্য করিমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। হাসপাতালে ২দিন চিকিৎসাধীন থাকায় রোগীর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।

বাড়িতে আনার পরে তার শারীরিক অবস্থার ক্রমশ অবনতি হলে জরুরি ভিত্তিতে কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার জানায় তার ক্ষতস্থানে মারাক্তক ইনফেকশান দেখা দিয়েছে। ব্যাগতিক অবস্থা দেখে ডাক্তার রোগীকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করে।

রোগীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীর স্বজনদের জানান, রোগীর অবস্থা খুবই খারাপ আপনারা তাকে বাড়ি নিয়ে যান। ডাক্তার চিকিৎসা দিয়ে তাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। 

গতকাল ১৫ এপ্রিল জখমি ফুল বানু তার নিজ বাড়িতে মারা যান।

সীমানা বিরোধ নিয়ে সৃষ্ট ঝগরা, ফুল বানু নিহতের ঘটনা ও আসামী কফি উদ্দিনসহ তার সহযোগীদের সম্পৃক্তার সত্যতা স্বীকার করেন আসামী ও নিহতের প্রতিবেশী আব্দুল জলিলের ছেলে কফিল মিয়া এবং মোঃ মোস্তফা কামালের ছেলে মোঃ আরকান।

এবিষয়ে নিহতের ছেলে আবু বাক্কার, ফালু মিয়ার ছেলে কফিল উদ্দিনকে (৩৩) প্রধান আসামী করে করিমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। 

করিমগঞ্জ থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে নিহতের লাশ থানায় আসে। পরদিন (আজ) লাশের সুরতহালের জন্য নিহতে লাশ কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এখন পর্যন্ত কোনো আসামী ধরা পড়েনি। তবে আসামী ধরার জোর চেষ্ঠা চলছে।

মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলো, ফালু মিয়া (৫৫) পিতামৃত নেওয়াজ আলী, মোছাঃ রহিমা (৪০) স্বামীঃ ফালু মিয়া, সর্ব সাং রৌহা, নিয়ামতপুর, আবুল (৫২) পিতামৃত নেওয়াজ আলী সাং শান্তিপুর, করিমগঞ্জ সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন।


আরও পড়ুন