কিশোরগঞ্জ সদর - এপ্রিল ২৯, ২০১৯

নুসরাত হত্যার প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জে ঈশা খাঁ বিশ্ববিদ্যালয়ের মানববন্ধন

ফেনী জেলার সোনাগাজী উপজেলার মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যকান্ডের বিচার ও সন্ত্রাসমুক্ত শিক্ষাঙ্গনের দাবিতে মুখে কালো কাপড় বেধে ঈশা খাঁ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। সোমবার (২৯ এপ্রিল) বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা নুসরাতের হত্যাকারী মাদ্রাসা অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও প্রতিটি শিক্ষাঙ্গনে নারীদের নিরপত্তার বিষয়টি জোরদার করার দাবি জানান। এছাড়া দেশের নারী সমাজের প্রতি অন্যায়, অবিচার ও শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস বন্ধ করার লক্ষ্যে সরকারকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান।

শিক্ষার্থীরা আরোও বলেন, মিডিয়া বা মানববন্ধনের মাঝেই তনু-নুসরাত হত্যার বিচার যেন স্থিমিত হয়ে না যায়। দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উদাসীনতাকে দায়ী করে শিক্ষার্থীরা বলেন, এসব অপরাধীরা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উদাসীনতায় দিনের পর দিন অপরাধ করেও সমাজে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ সুলতান উদ্দিন ভূঞা বলেন, ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার মেধাবী শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা জানাই। শিক্ষক নামের কলঙ্ক সিরাজ-উদ-দৌলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, সমাজের প্রতিটি অন্যায়, অবিচারের বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজকেই অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের ডীন প্রফেসর মোঃ রফিকুল আলম বলেন, যৌন হয়রানি, নারী নির্যাতন এখন আমাদের প্রাত্যহিক বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। এই ধরনের অপরাধের জন্য সমাজের সংঘটিত বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ অপরাধ প্রতিরোধে সহায়তার কারণ হবে।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর মোঃ আরজ আলী বলেন, সমাজে এসব ঘৃণ্য অপরাধীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে এদেরকে সকলের প্রচেষ্টায় দমন করতে হবে। হত্যাকান্ডে জড়িত সকলকে কঠোর বিচারের আওতায় এনে সরকার নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করবেন বলে আশা রাখি।

এছাড়া অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার চেধৈুরী খায়রুল হাসান, সহকারী প্রক্টর মাহবুবা, ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক বদরুল হুদা সোহেল প্রমুখ। এছাড়া মানববন্ধনে সকল বিভাগের শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরও পড়ুন