অনলাইনে ক্লিক করলেই মিলে কিশোরগঞ্জের পিরিজপুরের বিষ মুক্ত সবজি

বাংলাদেশের যে কোন প্রান্ত থেকেই অনলাইনে ক্লিক করলেই মিলে কিশোরগঞ্জের পিরিজপুরের বিষ মুক্ত সবজি। যে কেউ ঘরে বসে অর্ডার করতে পারবে: http://greenbangla.com.bd এই ওয়েব সাইটে গিয়ে অথবা গুগুল প্লে স্টোরে Green Bangladesh এ্যাপ্স দিয়ে। এটিই দেশের প্রথম উৎপাদিত কৃষিপণ্য যা অর্ডারের সাথে সাথেই পাচ্ছেন ভোক্তারা বিষমুক্ত সবজি। বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদনে “পিরিজপুর মডেল” হয়েছে। আর এ বিষয়টি জানান দিতে জেলা প্রশাসক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী গতকাল সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

কিশোরগঞ্জ বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের ‘পিরিজপুর মডেল’ কৃষক সমবায় সমিতি’ বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদনে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেন, কোনরূপ রাসায়ানিক সার, কীটনাশক, ছত্রাকনাশক, গ্রোথ হরমোন, এন্টিবায়টিক এমনকি অন্য যে কোন কৃত্রিম উপকরণ ব্যবহার না করে প্রকৃতি প্রদত্ত উপকরণ ব্যবহারের মাধ্যমে সবজি উৎপাদনে কাজ করছে “পিরিজপুর মডেল”।

পিরিজপুর মডেল কৃষক সংগঠন ৪৫ জন সদস্য নিয়ে ২০১৮ সালে গঠিত হয়। রবি, খরিপ-১ ও খরিপ-২ মৌসুমে বছরের প্রায় ২ হাজার ৪শ হেক্টর জমিতে কম্পোষ্ট, জৈব সার ও কেচু সার দিয়ে সবজি জমি চাষ করা হয়। সবজি উৎপাদিত হয় প্রায় ৬০ হাজার মে: টন। এই সব সবজির মধ্যে শসা প্রতি কেজি ৭-১০টাকা, প্রতি কেজি তিতা করলা ১৫-২০টাকা, মিষ্টি আলু প্রতি কেজি ৫টাকা, গোল আলু প্রতি কেজি ১০-১২টাকা, টমেটো প্রতি কেজি ১০-১২টাকা বিক্রি করা হয়। প্রতি বছরে প্রায় ১ শত কেটি টাকার কৃষিপণ্যের লেনদেন হয়ে থাকে। যে কেউ ঘরে বসে অর্ডার করতে পারবে: http://greenbangla.com.bd এই ওয়েব সাইটে গিয়ে অথবা গুগুল প্লে স্টোরে
Green Bangladesh এ্যাপ্স দিয়ে।

এসময় পাওয়ার পয়েন্ট স্পাইড সো ও ভিডিও’র মাধ্যমে সকলকে এ বিষয়ে অবহিত করা হয়। পাওয়ার পয়েন্ট স্পাইড সো ও ভিডিও পরিচালনায় ছিলেন উদ্যেক্তা আমিনুল ইসলাম।

বাজিতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ যুবায়ের এর সভাপতিত্বে এসময় অন্যন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা কৃষি অফিসার এবিএম রকিবুল হাসান, বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালক ডাক্তার বাহার উদ্দিন ভূঁইয়া, উপজেলা প্রকৌশলী মাজেদুল হক সজিব, সাবেক উপ-সহকারী কৃষি অফিসার ফারুখ আহম্মেদ, জাহানারা হাফিজ বিউটি, পিরিজপুর মডেল কৃষক সংগঠন এর সভাপতি হোসেন উদ্দিন হিরো, বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদনকারী কৃষক নুর আহমেদসহ অন্যন্যরা।

এর আগে জেলা প্রশাসক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী ভার্মি কম্পোষ্ট তৈরি কেন্দ্র ও সবজি জমি এবং কেচো সার উৎপাদন প্রদর্শনী পরিদর্শন করেন।

পিরিজপুরের কৃষকরা জানান, চাল কুমরা, পেপে, ভাঙ্গি, লেবু, কাঁচ কলা, কাঁচা আম, বেগুন, ঢেঁরশ, শসা, বরবটি, করলা, চিচিঙ্গা, সজিনা, কচুর লতী, উচ্ছে, পুইশাক, টমেটু, পেয়াজ, ডাব, চাম্পা কলা ও জৈব সার উৎপাদন করে কৃষকরা সাবলম্বী হয়েছে। তারা আরও জানান, এসব বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদনে এলাকাটি সবজির মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। কৃষকদের সংগঠন পিরিজপুর মডেল প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা হয়েছে। এ সংগঠনের অধিনে কৃষকরা একটি সমন্বিত প্রযুক্তি নির্ভর নিরাপদ কৃষিপণ্য উৎপাদন আন্দোলন যেখানে কৃষি উৎপাদন, বিপণন, পরিবেশ সুরক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন ইত্যাদি ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার চেষ্টা করা হয়েছে।

পিরিজপুরের কৃষকরা মনে করেন এ আন্দোলনের সুফল ইতোমধ্যেই এলাকার কৃষক ও ভোক্তা আহরণ করতে শুরু করেছে। তাদের লক্ষ্য পিরিজপুর মডেল এর ইতিবাচক ফলাফল সমূহ দেশ ব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে সমাজের অনগ্রসর কৃষক সমাজের আর্থ সামাজিক উন্নয়নকে একটি জাতীয় আন্দোলনে পরিণত করা। পিরিজপুর মডেলের সাফল্য দেখে অন্যন্যা এলাকার কৃষকরাও সবজি চাষে এগিয়ে এসেছে।


আরও পড়ুন