কিশোরগঞ্জে শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত আব্দুল হাই তালুকদার ও শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত আবুল কালাম

মাদক নির্মূল, অবৈধ মোটর সাইকেল উদ্ধার ও সাজা প্রাপ্ত আসামী গ্রেফতারে অবদান রাখায় কিশোরগঞ্জ জেলায় শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন কুলিয়াচর থানার ওসি আব্দুল হাই তালুকদার ও শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত হয়েছেন কুলিয়ারচর থানার এসআই আবুল কালাম আজাদ।

গত রোববার (১৯ মে) দুপুরে অনুষ্ঠিত জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভায় শ্রেষ্ঠ ওসি ও শ্রেষ্ঠ এসআই হিসেবে তাদের পুরস্কৃত করা হয়। কিশোরগঞ্জ পুলিশ সুপার মোঃ মাশরুকুর রহমান খালেদ, বিপিএম (বার) শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে আব্দুল হাই তালুকদার ও শ্রেষ্ঠ এসআই হিসেবে আবুল কালাম আজাদ এর নাম
ঘোষণা করে তাদের হাতে পুরস্কারের ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ তুলে দেন। এসময় পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি পাওয়া কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) নাজমুল ইসলাম ছাড়াও জেলা পুলিশের উধ্বর্তন কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন সার্কেল ও থানার কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

গত এপ্রিল মাসের পারফর্মেন্সের মধ্যে ২০ এপ্রিল এসআই আবুল কালাম আজাদ প্রথমে একটি চোরাই মোটর সাইকেলসহ এক চোরকে আটক করে। এর সূত্র ধরে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই তালুকদারের নেতৃত্বে এসআই আবুল কালাম আজাদ সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স নিয়ে অভিযান
চালিয়ে মোট ১৪টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধারসহ চোরচক্রের ৩ সদস্যকে আটক করে সফলতা দেখান। এছাড়া মাদক নির্মূল, চোরাই মালামাল ও সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতারে অবদান রাখেন তারা।

অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই তালুকদার টাঙ্গাইল জেলার কালিহাটি উপজেলার নগরবাড়ি গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আব্দুল মান্নান তালুকদার। ২০০১ সালে তিনি পুলিশ একাডেমী, সারদা, রাজশাহীতে প্রথম যোগদান করেন। গত ১৩ ফেব্রুয়ারী কুলিয়ারচর থানায় অফিসার ইনচার্জ
হিসেবে যোগদান করার পর থেকে তিনি চোরাই মালামাল উদ্ধার, চোরচক্রের সদস্য আটকসহ মাদক নির্মূলে একের পর এক সফল অভিযান পরিচালনা করে আসছেন। কুলিয়ারচর থেকে মাদক চিরতরে উৎপাটন করার তার লক্ষ্য দাবি করে তিনি বলেন, অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি, অভিভাবক, সুশীল সমাজ, সাধারণ মানুষের আন্তরিকতা ও সহযোগিতা পেলে কুলিয়ারচরে শতভাগ মাদক নির্মূল করা সম্ভব। জন সচেতনতা বৃদ্ধি করা না গেলে মাদক নির্মূল সহজতর নয়।

এসআই আবুল কালাম আজাদ নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার গোবিন্দশ্রী গ্রামে ১৯৮০ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মোঃ জালাল উদ্দিন। ২০০০ সালে তিনি পুলিশ একাডেমী, সারদা, রাজশাহীতে প্রথম যোগদান করেন। গত মার্চ মাসে কুলিয়ারচর থানায় এসআই হিসেবে যোগদান করার পর থেকে তিনি অপরাধ দমনে একের পর এক সফল অভিযান পরিচালনা করে আসছেন। গত ২০
এপ্রিল ১৪টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধারসহ চোরচক্রের ৩ সদস্যকে আটক করে সফলতা অর্জন করেন। এছাড়া তিনি কিশোরগঞ্জ জেলার সদর থানা, কটিয়াদী ও বাজিতপুর থানায় দায়িত্বপালন কালে প্রায় ৩৫টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধারসহ চোরচক্রের প্রায় ১৫জন সদস্যকে আটক করে ও অপরাধ দমনে সফলতা অর্জন করায় কিশোরগঞ্জ জেলায় কমপক্ষে ১৫ বার শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

এছাড়া তিনি ঢাকা রেঞ্জে ২য় বারের মতো শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত হওয়ায় ২২ মে (বুধবার) শ্রেষ্ঠ পুরস্কার গ্রহণ করবেন বলে জানা যায়।


আরও পড়ুন