বিশ্বকাপে গেইলের আউট নিয়ে তোলপাড়

জমে উঠেছে ২২ গজের যুদ্ধ। আর এরমধ্যেই আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। শুরু হয়েছে নানা বিতর্ক। 

বৃহস্পতিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে এক বা দুই নয়। একেবারে চার চারটি ভুল করে কাঠগড়ায় দুই ফিল্ড আম্পায়ার নিউজিলান্ডের ক্রিস গ্যাফানি এবং শ্রীলঙ্কার রুচিরা পালিয়াগুরুগে।ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাট করার সময় যে চারবার ব্যাটসম্যানকে আউট দেয়া হয়, চারবারই ভুল প্রমাণিত হন ফিল্ড আম্পায়াররা। রিভিউতে সব সিদ্ধান্তই ব্যাটসম্যানদের পক্ষে যায়। যা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

যদিও সবচেয়ে বেশি আলোচনা এখন হচ্ছে ক্রিস গেইলকে দু’বার ভুল আউট দেয়া এবং একবার নো বল হয়েও তা আম্পায়ারের চোখ এড়িয়ে যাওয়া নিয়েই।

পঞ্চম ওভারে ক্রিস গেইলকে একটি দুরন্ত ইয়র্কার দেন মিচেল স্টার্ক। যেহেতু সেই বলে কোনও রান বা আউটের আবেদন হয়নি, তাই টিভি আম্পায়ারের সাহায্য নেয়াও হয়নি। কিন্তু পরে দেখা যায় ক্রিজ থেকে স্টার্কের পা অনেকটাই বেরিয়ে গিয়েছিল। তবে তা আম্পায়ার গ্যাফানির চোখ এড়িয়ে যায়। তাই নিয়ম অনুযায়ী যে বলে গেইল আউট হয়েছেন, তাতে ফ্রি হিট পাওয়ার কথা ছিল গেইলের। 

কিন্তু আম্পায়ারের ভুলেই সেটা শেষ পর্যন্ত সম্ভব হয়নি। গোটা ঘটনায় ক্যারিবিয়ান সমর্থকরা স্বভাবতই যথেষ্ট বিরক্ত। যদিও ম্যাচ শেষে এই নিয়ে কিছু জানাননি ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার।

ভারতের সাবেক ক্রিকেটার সুনীল গাভাসকরের মতে, নো বলের সিদ্ধান্ত থার্ড আম্পায়ারকে দিয়ে দেয়া উচিত। অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচের কমেন্ট্রিতে বসে তার সোজাসাপ্টা বক্তব্য, ‘গাফানি প্রচুর ভুল করছেন। ভুল সবারই হয়। গাফানিরও তেমন।’

সঙ্গে জুড়েছেন, অনেক সময় দেখি, নো বলে কোনও ব্যাটসম্যান আউট হলে থার্ড আম্পায়ার সেটা খুঁটিয়ে দেখেন। মাঠের মধ্যেই তখন অপেক্ষা করতে হয় ব্যাটসম্যানকে। রান আউটের মতোই নো বলের ব্যাপারটাও এবার থেকে থার্ড আম্পায়ারের হাতেই দিয়ে দেয়া হোক।

এদিকে, নো বলে ফ্রি হিট পাওয়ার কথা গেইলের অথচ আউট দিয়ে দেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বর্তমান ও খেলোয়াড়দের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

বিশ্বকাপের এক-একটা ম্যাচে যে কোনও টিমের ছবি পাল্টে যাবে। আর তার পিছনে যদি আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্ত থাকে, তা হলে বিতর্ক বাড়বে আরও!


আরও পড়ুন