শরণার্থীদের জন্য আইন কঠোর করছে জার্মানি

শুক্রবার পার্লামেন্টে ৩৭২টি ভোটের মধ্যে ১৫৯টি ভোট ‘অর্ডারলি রিটার্ন ল’ নামে এই আইনের পক্ষে যায়। এসময় অনুপস্থিত ছিলেন ১১ জন। চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা ম্যার্কেলের দল ও জোটের নেতারা এই বিলের পক্ষেই ভোট দেন।

এই আইনের আওতায় ব্যর্থ আশ্রয়প্রার্থীরা তাদের পরিচয় প্রমাণে সক্ষম হবেন না এবং তারা বিভিন্ন আর্থিক ও সামাজিক নিরাপত্তা বিষয়ক সুবিধার ব্যাপারে যোগ্য বিবেচিত হবেন না। যেই আশ্রয়প্রার্থীরা তাদের পরিচয় ও দেশ নিয়ে মিথ্যা বলবে তাদেরকে আটক রাখা হবে এবং দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

এছাড়া ব্যর্থ আশ্রয়প্রার্থীদের সাধারণ কারাগারে আটকেরও অনুমতি মিলেছে কর্তৃপক্ষের। তবে তাদের অন্যান্য বন্দি থেকে আলাদা রাখা হবে।

এই আইনের বিরোধিতা করছে বিরোধী দল গ্রিন পার্টি। দলটির নেতা ফিলিজ পোলাত বলেন, ‘এটা স্বাধীন গণতন্ত্রের জন্য কালোদিন। এটা সংবিধান ও ইউরোপীয় আইনের পরিপন্থী।’

গত বছর প্রায় ৩১ হাজার ব্যর্থ আশ্রয় প্রার্থীকে দেশে ফেরত পাঠাতে পারেনি জার্মানি। তাদের কারও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিলো না আর কেউবা হারিয়ে গেছেন।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ১০ লাখেরও বেশি শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে জার্মানি। তবে বেশ কিছু সন্ত্রাসী হামলার পর জার্মান চ্যান্সেলরের শরণার্থী আশ্রয় নীতি নিয়ে দেশটিতে সমালোচনার ঝড় উঠে।


আরও পড়ুন