কিশোরগঞ্জের খবর - জুন ১০, ২০১৯

কিশোরগঞ্জে ভাবিকে হত্যার দায়ে দেবরের মৃত্যুদণ্ড

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় ভাবিকে কুপিয়ে হত্যা মামলার রায়ে দেবর আজহারুল ইসলাম মিলনকে (৪৩) মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার (১০ জুন) সকালে আসামির উপস্থিতিতে কিশোরগঞ্জের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুহাম্মদ আব্দুর রহিম এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আজহার পাকুন্দিয়া সদরের মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত ছায়ামুদ্দিনের ছেলে।

মামলার এজাহার ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ১৫ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পারিবারিক কলহ, কথাকাটাকাটি ও পরে ঝগড়ার জের ধরে আজহার তার বড়ভাই বাবুলের স্ত্রী তাসলিমা আক্তারকে (৪৫) দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে। এ সময় তাসলিমার মাথা, দুই হাত ও শরীরের বিভিন্ন স্থান মারাত্মকভাবে জখম হয়। মুমূর্ষু অবস্থায় ওই নারীকে উদ্ধার করে প্রথমে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে রাজধানী ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হলে বিকেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় নিহত তাসলিমার ভাই সাহাবুদ্দিন বাদী হয়ে একইদিন আজহারুল ইসলামকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ২০১৬ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন পাকুন্দিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ জিয়াউল রাব্বী।

রাষ্ট্রপক্ষে এপিপি অ্যাডভোকেট সৈয়দ শাহজাহান ও আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট মো. জালাল উদ্দিন মামলা পরিচালনা করেন।


আরও পড়ুন