কটিয়াদী - জুন ১৮, ২০১৯

স্থগিত হওয়া কটিয়াদী উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের বিদ্রোহী মুশতাকুর বেসরকারিভাবে নির্বাচিত

তৃতীয় ধাপে স্থগিত হওয়া কটিয়াদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ীর হাসি হেসেছেন আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা হিসেবে পরিচিত ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান।

উপজেলার ৮৯টি কেন্দ্রের সবকটি থেকে প্রাপ্ত ফলাফলে চেয়ারম্যান পদের ছয় প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ডা. মোহাম্মদ মুশতাকুর রহমান (ঘোড়া) ১৬ হাজার ৩৮৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ প্রার্থী কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সহ তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক তানিয়া সুলতানা হ্যাপী (নৌকা) পেয়েছেন ১৫ হাজার ৩১৬ ভোট। অন্য চার প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান লায়ন আলী আকবর (দোয়াত-কলম) ১১ হাজার ৯৯১ ভোট, আওয়ামী লীগের অপর বিদ্রোহী আলতাফ উদ্দীন (মোটর সাইকেল) ১১ হাজার ১২৮ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার আনার (আনারস) ২৬৫ ভোট এবং জাকের পার্টির প্রার্থী শহীদুজ্জামান স্বপন (গোলাপ ফুল) ২৫৮ ভোট পেয়েছেন।

অন্যদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে রেজাউল করিম শিকদার (তালা) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকাল ৯টা থেকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। ব্যাপক নিরাপত্তার মধ্যে কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সরেজমিন কেন্দ্রে কেন্দ্রে ঘুরে ভোটার উপস্থিতি কম দেখা গেছে। তবে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রতিটি কেন্দ্রেই পর্যাপ্ত পুলিশ ও আনসার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশের স্ট্রাইকিং ফোর্সকে টহল দিতে দেখা গেছে। ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল টিমও নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন।

কটিয়াদী উপজেলায় মোট ভোটার ছিলেন ২ লাখ ৩০ হাজার ৪২২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ১৩ হাজার ৬১৮ জন এবং মহিলা ভোটার ১ লাখ ১৬ হাজার ৮২২ জন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ছাড়াও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।


আরও পড়ুন