কিশোরগঞ্জে মসজিদের ইমাম নিয়ে দ্বন্দ্বে নিহত

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মসজিদের ইমাম পরিবর্তন নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের মারধরে ফজলু মিয়া (৫৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ফজলু মিয়া উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের মিরারচর গ্রামের সবুদ আলীর ছেলে।

শুক্রবার (২১ জুন) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ভৈরবের মিরারচর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মরদেহ রাতেই উদ্ধার করে ভৈরব থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। শনিবার সকালে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সকালে দুপক্ষের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। এসময় বাড়িঘর লুটপাটের অভিযোগও পাওয়া গেছে।

প্রতক্ষ্যদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, শুক্রবার রাতে ভৈরবের মিরারচর এলাকার সাতভাই বাড়ির মসজিদের ইমাম পরিবর্তন নিয়ে ফজলু মিয়ার সঙ্গে আলাউদ্দিন মিয়া ও সেলিম মিয়ার ঝগড়া হয়। রাতে দুই পক্ষের বৈঠকে ফজলু মিয়া মসজিদের ইমামের চাকরি রাখার পক্ষে থাকলেও মসজিদ কমিটির সভাপতি আলাউদ্দিন ও সেলিম বিপক্ষে ছিলেন।

এ সময় উভয় পক্ষের তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে ফজলু মিয়াকে তারা গলায় গামছা বেঁধে মারধর করেন। পরে বাসায় ফিরে তিনি রাত সাড়ে ৯টায় অসুস্থ হয়ে মারা যান। তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে প্রতিপক্ষ দাবি করলেও ফজলু মিয়ার পরিবারের দাবি প্রতিপক্ষের মারধরে তার মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠকে জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। ফজলু মিয়ার পরিবার হত্যা মামলা করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও পড়ুন