রাজনীতি - June 30, 2019

সংসদে কারা সরকারি, কারা বিরোধী দল বুঝতে পারছি না : রুমিন ফারহানা

২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট প্রস্তাবের ওপর আনা ছাঁটাই প্রস্তাবে স্বাস্থ্য খাতের বরাদ্দের সমালোচনা করতে গিয়ে মুখোমুখি বিতর্কে জড়িয়েছেন বিএনপি ও জাপা এমপিরা। এ সময় সরকার দলীয় এমপিরা জাপা এমপিদের বক্তব্যকে সমর্থন জানাতে দেখা যায়। বাজেটে বরাদ্দের বিরোধীতা করে স্বাস্থ্যখাত নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন বিএনপি দলীয় এমপিরা। কিন্তু সংসদে বিএনপি এমপিদের বক্তব্যের বিরোধীতা করছিলেন সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি-জাপা। এ নিয়ে বিএনপির এমপি ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, এমন একটা সংসদে আছি, কোনটা সরকারি দল, কোনটা বিরোধী দল বুঝতে পারছি না।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে রবিবার সংসদের বাজেট অধিবেশনে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট পাসের আগে মন্ত্রণালয় ভিত্তিক বরাদ্দ ও মুঞ্জুরি দাবির ওপর আনীত ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচানার সময় এই বিতর্কের ঘটনা ঘটে।বিএনপির এমপি মো. হারুনুর রশীদ বলেন, ডাক্তাররা এত বেশি রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে গেছে মানুষ এখন মৌলিক স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছে না। দেশে চিকিৎসা হয় না। মানুষ চিকিৎসা পেতে ছুটছে বিদেশে। 

এরপর ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য বলেছেন, দেশে চিকিৎসা হয় না, এটা ঠিক না। আসলে আপনাদের দেশের উপর আস্থা নাই। একটি ছেলে অন্ধ হয়ে গিয়েছিল আমি দেশে নিয়ে আসলাম, তার চোখে অপারেশন হচ্ছে। আমার নিজের চোখ অপারেশন করেছি। কারণ আমার এদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার ওপর আস্থা আছে।

এ সময় তিনি বিএনপি এমপিদের উদ্দেশ্যে বলেন, ডাক্তারদের দলীয়করণ কথা বলছেন? এরজন্য কে দায়ী? জিয়ার আমলে তৎকালীন বিএনপির মহাসচিব বি চৌধুরীকে (অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী) দিয়ে প্রথম ড্যাব (ডক্টর এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ) গঠন করা হয়। আপনারাই ডাক্তারদের দলীয়করণ করেছেন।

জাতীয় পার্টির আরেক সংসদ সদস্য ডা. মো. রুস্তম আলী ফরাজী ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে বিএনপির উদ্দেশ্যে বলেন, সব দোষ খালি ডাক্তারদের দিলে চলবে না। একটা-দুইটা বিচ্ছিন্ন ঘটনাকে কেন্দ্র করে সমস্ত ডাক্তার, সমস্ত হাসপাতাল খারাপ বলবেন এটা তো ঠিক না। এমন কোন হাসপাতাল নাই যেখানে ২০টা ৩০টা অপারেশন হয় না। বঙ্গবন্ধুতে লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট হয়। বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট হয়। মানুষের টাকা যখন হয় সর্দি কাশিতেও সিঙ্গাপুর যায়, ভারত যায়, ফেরাবেন কিভাবে? খোঁজ নেন কার কত টাকা আছে। ধনী লোকগুলো ইচ্ছে করে যায়, আমাদের দেশকে অপমান করার জন্য।

পরে ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে বিএনপির রুমিন ফারহানা বলেন, এমন সংসদে বসেছি, কোনটা সরকারি দল, কোনটা বিরোধী দল কিছুই বুঝি না।

ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে রুমিনের বক্তব্যে জবাব দেন জাতীয় পার্টির আরেক সংসদ সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্ন। তিনি বলেন, বিরোধী দল কি করবে? সরকার যদি ভাল কাজ করে সেটার প্রশংসা করে। কিন্তু সংসদে ৪০০ কার্য দিবসে মাত্র ১০ দিন উপস্থিত হওয়া এর নাম বিরোধী  দল না। আমরা জাতীয় পার্টির অন্তত সেই বিরোধী দল হতে চাই না। 


আরও পড়ুন