ময়মনসিংহে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মাদরাসা শিক্ষক আটক

ময়মনসিংহের ভালুকায় ৮ বছরের শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শরিফুল ইসলাম (২৫) নামে এক মাদরাসা শিক্ষককে আটক করেছে মডেল থানা পুলিশ। রোববার (০৭ জুলাই) সকালে উপজেলার পাড়াগাঁও বড়চালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাড়াগাঁও বড়চালা গ্রামে অবস্থিত নুরানী মাদরাসায় সম্প্রতি মাওলানা শরিফুল ইসলাকে নিয়োগ দেয়া হয়। ওই শিক্ষক প্রতিদিন মাসজিদের বারান্দায় শিশুদের মক্তব পড়িয়ে থাকেন। রোববার সকালে বৃষ্টির কারণে ছাত্র ছাত্রী কম আসায় মসজিদের কাছের মৃত ইসমাইলের শিশু কন্যা স্থানীয় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিথীয় শ্রেণীর ছাত্রী (৭) ও শারীরিক প্রতিবন্ধী বাবুলের শিশুকন্যা বড়চালাহুসানিয়া দাখিল মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী (৮) পড়তে যায়। এ সময় ওই শিক্ষক এক শিশুকে (৮) ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। পরে মৃত ইসমাইল শিশু কন্যা বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি অভিভাবকে জানালে এলাকাবাসী ও অভিভাবকগণ ওই শিক্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

ওই মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জানান, ইতোপূর্বে এই প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক মো: রফিকুল ইসলাম কর্তৃক এক শিশুকে বলাৎকারের ঘটনায় কোন বিচার না হওয়ায় আমি প্রতিষ্ঠানের সেক্রেটারী পদ থেকে পদত্যাগ করি। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকের বিচার হলে আজ এ ধরণের ঘটনা ঘটতোনা। অভিযুক্ত ওই শিক্ষক এখনো এই প্রতিষ্ঠানে চাকরী করছেন।

শিশুটির বাবা শারীরিক প্রতিবন্ধী বাবুল জানান, আমি অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের উপযুক্ত বিচর চাই। অভিযুক্ত মাওলানা শরিফুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার বিরুদ্ধে আনা এই ঘটনাটি একটা ষড়যন্ত্র।

ভালুকা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মাজাহারুল ইসলাম জানান, শিশু ধর্ষণ চেষ্টা ঘটনায় শিক্ষককে আটক করা হয়েছে। অভিযোগমূলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও পড়ুন