বৃষ্টিতে যে ম্যাচে যৌথ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত

বিশ্বকাপে এবারই প্রথম নক আউট পর্বের খেলা গড়ালো রিজার্ভ ডেতে। ভারত-নিউজিল্যান্ডের প্রথম সেমিফাইনাল নির্ধারিত দিনে শেষ করা যায়নি বলে তা মাঠে গড়াবে আজ। অবশ্য আইসিসির বড় কোনও ইভেন্টে তেমন ঘটনা আগেও ঘটেছিল! যদিও ম্যাচের ফলটা ভাগ করে নিতে হয়েছিল দুই দলকে।

২০০২ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেই ইভেন্টের ফাইনাল পড়েছিল বৃষ্টির বাধায়। ৩০ সেপ্টেম্বর কলম্বোর সেই ফাইনাল ম্যাচটিতে হানা দেয় মৌসুমী বৃষ্টি। ভারত ও স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার সেই ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত আর পরিণতির দিকে যায়নি।

শুরুতে ৭ উইকেটে নির্ধারিত ৫০ ওভারে লঙ্কানরা ২২২ রান তুলতে পেরেছিল। বিপত্তি নামে ভারতের রান তাড়ার বেলায়। তারা শুধুমাত্র ৮.৪ ওভারে ১ উইকেটে ৩৮ রান তুলতে পেরেছিল। নির্ধারিত দিন ম্যাচটি তো গড়ায়ইনি, তার ওপর পরের দিন ফাইনালটি মাঠে গড়ানোর কথা থাকলেও বৃষ্টির হানায় সেদিনও ম্যাচটি আর শুরু করা যায়নি। তাই বাধ্য হয়েই যৌথভাবে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয় দুই দলকে।

বিশ্বকাপে এর আগে ১৯৯৯ সালে একটি গ্রুপ ম্যাচ গড়িয়েছিল রিজার্ভ ডেতে। ভারত ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার সেই খেলাটি বৃষ্টির মুখে পড়লেও পরে মোহাম্মদ আজহারউদ্দীনের দল নিশ্চিত করেছিল ৬৩ রানের জয়।

এবারের পরিস্থিতি অবশ্য দুই দলকে সুবিধা দিচ্ছে না। কপাল পুড়বে একটি দলের। গতকাল টস জিতে ৫ উইকেটে ২১১ রানে আগের দিন শেষ করেছিল নিউজিল্যান্ড। আজকে ঠিক ৪৬.১ ওভার থেকে খেলা শুরু করবে দুই দল। আজকেও বৃষ্টি হানায় খেলা না হলে তখন লিগ পর্বে সর্বোচ্চ পয়েন্ট প্রাপ্তিতে ফাইনালে পৌঁছে যাবে ভারত। তবে ডি/এল মেথডে খেলা গড়ালে রোমাঞ্চকর কিছুই উপহার দেবে এই ম্যাচ! 


আরও পড়ুন