কিশোরগঞ্জে শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচন

কিশোরগঞ্জ বড়বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচন আগামী ৩০ জুলাই সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত শহরের উৎসব কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে ঘিরে কিশোরগঞ্জ শহরের ব্যবসার প্রাণকেন্দ্র বড়বাজারে আনন্দঘন ও উৎসুব মুখোর পরিবেশ লক্ষ করা যাচ্ছে প্রার্থী, ভোটার ও সমর্থকদের মধ্যে। প্রতিদিনই সন্ধার পর নেমে আসে প্রার্থীর সমর্থকদের আনন্দময় প্রচারনা। যা নির্বাচনকে আরো প্রানবন্ধ ও উৎসবে পরিনত করেছে।

নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করছেন ‘প্রধান নির্বাচন কমিশন এডভোকেট আমিনুল ইসলাম রতন ও সহকারী নির্বাচন কমিশন প্রফেসর আল আমীন। নির্বাচন কমিশনের বরাত দিয়ে জানা যায় স্হানীয় ভাবে কিশোরগঞ্জে যতগুলো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, তার মধ্যে কিশোরগঞ্জ বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচন সুষ্ঠ নির্বাচনের একটি রোলমডেল। এখানে সকল প্রার্থী ও ভোটাররা কমিশনের সকল নিয়ম পালন করে অত্যন্ত সু-শৃংখলভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে থাকেন, বিগতদিনের নির্বাচন যার উদাহরণ। নির্বাচনকে সুষ্ঠ, অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য করার লক্ষে আইন শৃংখলা বাহিনী ও প্রসাশনকে অবহতি করা হয়েছে।

এবার ৮৮৬ জন ভোটারের মধ্যে, দুটি প্যানেলে সর্বমোট ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, তার মধ্যে নির্বাচিত হবেন ১৮ জন। আশা করি এবারও সকলের সহযোগীতায় নির্বাচন সম্পুর্ন সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হবে। আর এদিকে তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে গত দু’দিনে সাধারণ ভোটারের মতামত জানতে চাওয়া হলে – নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই বলেন, কামরুল ওসমান শাহীন পরিষদ ও তাজুল দিলু প্রদীপ পরিষদের মধ্যে নির্বাচনী লড়াই জমে উঠেছে।

প্রচার-প্রচারণায় তাজুল দিলু প্রদীপ পরিষদ এগিয়ে থাকলেও কামরুল ওসমান শাহীন পরিষদ ভোটের দিগদিয়ে এগিয়ে, তবে বলা যায় না কোন পরিষদ জয়লাভ করে নির্বাচনের দিন ভোটের লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি দুই পরিষদের।

তারমধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদে মোহাম্মদ ওসমান গনি, কোষাধক্ষ্য মোঃ মিনহাজ উদ্দিন শাহীন, সাংগঠনিক মোঃ এমদাদুল হক স্বপন এবং প্রচার ও দপ্তর সম্পাদকে মোঃ আলমগীর হোসেনের পথ অনেকটাই পরিষ্কার বোঝা যায়, ভোটের লড়াই হবে সভাপতি সহ অন্যান্য পদে।

উল্লেখ্য প্রতি তিন বছর পর পর এই সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, গত ৮ জুন পরিচালনা কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় মাসুদুল হাসান মাসুদকে আহ্বায়ক করে সংগঠনের কার্যক্রম ও নির্বাচনী প্রক্রিয়ার দায়িত্ব চলমান রয়েছে।


আরও পড়ুন