খেলার খবর - আগস্ট ২, ২০১৯

ক্রীড়াঙ্গনের ৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে

ক্রীড়াঙ্গনে ডেঙ্গু আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। ফেডারেশন অফিস কিংবা কোনো খেলা, সবখানে ডেঙ্গু আতংক সবার মুখে মুখে। আর যারা বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে রয়েছেন তাদের মধ্যে ডেঙ্গুর আতংক যেন আরও বেশি। প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে থাকা ৭ ক্রীড়াবিদ এখন হাসপাতালে রয়েছেন।

শুরুতে খেলোয়াড়দের ৫ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এদের মধ্যে খো খো খেলোয়াড় আসমা ও জান্নাতুল নাইম বৃষ্টি রয়েছেন বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। কাবাডি খেলোয়াড় বৃষ্টি বিশ্বাস রয়েছেন রাজধানীর পুলিশ হাসপাতালে। কাবাডি খেলোয়াড় শ্রাবণী হাসাপাতালে গেলেও তাকে আবার আসতে বলা হয়েছে। বস্কেটবল খেলোয়াড় বৃষ্টি চিকিৎসা নেওয়ার পর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল তাকে ছেড়ে দিয়েছে।

শুক্রবার রাতে বিওএর (বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন) মেডিকেল কমিটির সদস্য সচিব চিকিৎসক শফিকুর রহমান আরও পাঁচজনের ডেঙ্গু আক্রান্ত হওয়ার আশংকার কথা প্রকাশ করে বলেন, ‘আরও ৫ জন খেলোয়াড় হাসপাতালে গিয়েছিলেন জ্বরে আক্রান্ত হয়ে। এদের মধ্যে ৪ জনকে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। ডেঙ্গু হয়েছে কি না তা পরীক্ষা করা হচ্ছে। রিপোর্ট হাতে পেলে বলা যাবে।’

তিনি আরও জানান, জ্বর কিংবা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ক্রীড়াবিদদের চিকিৎসা দেওয়ার পাশাপাশি ডেঙ্গু থেকে ক্রীড়াবিদদের রক্ষা করার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ)। দুটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের আবাসনস্থলে মশা থেকে ক্রীড়াবিদদের রক্ষা করার জন্য মশার ওষুধ স্প্রে করা হবে।

শুক্রবার রাতে বিওএর প্রধান নির্বাহী, ব্রিগেডিয়ার ফখরুদ্দিন হায়দার (অবঃ) জানিয়েছেন ক্রীড়াবিদদের দুটি ক্যাম্পে মশার ওষুধ স্প্রে করা হবে। বিওএর সভাপতি জেনারেল আজিজ আহমেদ এমন উদ্যোগ নিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘১৩তম সাউথ এশিয়ান গেমস উপলক্ষে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এবং সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের নির্দেশনায় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে আগামীকাল শনিবার বেলা ১১টায় ধানমন্ডির সুলতানা কামাল মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু মশা নিধন কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সের পর এই কার্যক্রম মোহাম্মদপুর শারীরিক শিক্ষা কলেজে পরিচালিত হবে।’


আরও পড়ুন