বিনোদন - আগস্ট ৩, ২০১৯

কেটি পেরির শাস্তি প্রায় ২৩ কোটি টাকা!

আমেরিকান গায়িকা কেটি পেরির ‘ডার্ক হর্স’ অন্য একটি গানের সুর নকল করে বানানো হয়েছে। লস অ্যাঞ্জেলেসের একটি আদালত আগেই এই রায় দিয়েছেন। বাকি ছিল ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করা। বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) লস অ্যাঞ্জেলেসের একজন বিচারক সেই অঙ্কও জানিয়ে দিলেন।

র‌্যাপার ফ্লেমের ‘জয়ফুল নয়েজ’ গানের সুর নকলের কারণে ‘ডার্ক হর্স’ সংশ্লিষ্টদের ২৭ লাখ মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ গুনতে হবে। পুরোটাই পাবেন ৩৭ বছর বয়সী ওই র‌্যাপার। অর্থাৎ ২২ কোটি ৮১ লাখ ২৩ হাজার টাকা! তবে রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে ছিলেন না।

যদিও সপ্তাহব্যাপী চলা বিচার প্রক্রিয়ায় ৩৪ বছর বয়সী এই তারকা প্রমাণ দিয়েছিলেন তিনি গান নকল করেননি। এমনকি নিজের গান রেকর্ডিংয়ের আগে ২০০৯ সালে প্রকাশিত ‘জয়ফুল নয়েজ’ কখনও শোনেননি তিনি।

‘ডার্ক হর্স’ গানের সুবাদে ৩ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার আয় করেছে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ক্যাপিটাল রেকর্ডস। অর্থাৎ ২৬১ কোটি ৯১ লাখ ৯০ হাজার টাকা! এর মধ্যে কেটির অ্যাকাউন্টে এসেছে ৩২ লাখ ডলার (২৭ কোটি ৩৬ লাখ ৮ হাজার টাকা)।

জানা গেছে, আদালতের রায়ে ক্ষতিপূরণের মধ্যে ক্যাপিটাল রেকর্ডসকে ১২ লাখ ডলার (১০ কোটি ১৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা) ও কেটি পেরিকে ৫ লাখ ৫০ হাজার ডলার (৪ কোটি ৬৪ লাখ ৬৯ হাজার ৫০০ টাকা) দিতে বলা হয়েছে। প্রযোজকসহ অন্যদের দিতে হবে বাকি অঙ্ক।

২০০৮ সালে ‘আই কিসড অ্যা গার্ল’ গানের সুবাদে আন্তর্জাতিক পরিচিতি পান কেটি পেরি। ২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হয় তার গাওয়া ‘ডার্ক হর্স’-এর ভিডিও। ওই বছরেই তার বিরুদ্ধে গানের সুর নকলের মামলা করেন ফ্লেম। পাঁচ বছর পর এসে তা শেষ হলো।

‘ডাক হর্স’ প্রকাশিত হয় ২০১৩ সালে কেটি পেরির ‘প্রিজম’ অ্যালবামে। বিশ্বব্যাপী এর ১ কোটি ৩০ লাখ কপি বিক্রি হয়েছে। এর ভিডিওর মাধ্যমে ইউটিউব ও ভেভোর ইতিহাসে প্রথম কোনও গায়িকা ১০০ কোটি ভিউর মাইলফলকে পৌঁছান।

অন্যদিকে ২০০৪ সালে প্রথম অ্যালবাম বাজারে আনেন ফ্লেম। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি অঙ্গরাজ্যের সেন্ট লুইসের বাসিন্দা। তার প্রকৃত নাম মার্কাস টাইরোন গ্রে। সূত্র: রয়টার্স


আরও পড়ুন