আন্তর্জাতিক - আগস্ট ৯, ২০১৯

থমথমে পরিবেশে জুমার নামাজে কাশ্মীরিরা

এতদিন দিনের বেলায় কেউ ঘর থেকে বের হতে পারেননি। শুক্রবার এসে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হয়েছে। কড়া নিরাপত্তার ভেতর কাশ্মীরিরা মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করার অনুমতি পান।

বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় মসজিদের জন্য অনুমতি মিললেও শ্রীনগরের কেন্দ্রীয় মসজিদ বন্ধ ছিল।

গত সোমবার ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপ করে দেশটির অধীনে থাকা জম্মু-কাশ্মীরকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার পর সেখানে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সাধারণ মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারছেন না। অলিগলির দখল নিয়েছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। স্থানীয় নেতারা আছেন ধরপাকড়ের ভেতর।

এই কদিন মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেটের কোনো সংযোগ সেখানে ছিল না। কিছু এলাকার লোকজন জানিয়েছেন, তারা এখন ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারছেন। শ্রীনগরের কিছু এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্কও সচল হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বৃহস্পতিবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রতিশ্রুতি দেন, ঈদের আগেই জম্মু-কাশ্মীরের অবস্থা স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

‘ধীরে ধীরে জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে। ঈদের সময় কোনো ঝামেলা থাকবে না।’

সেখানে দ্রুততম সময়ে নির্বাচন দেওয়ারও কথা দেন মোদি, ‘এখন থেকে জম্মু-কাশ্মীরের লোকজন তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করার সুযোগ পাবেন। আমি নিশ্চিত এই সব চেষ্টা উপত্যকা থেকে সন্ত্রাস নির্মূল করবে।’


আরও পড়ুন