বিনোদন - 6 days ago

এই প্রথম জন্মদিনে নেই আইয়ুব বাচ্চু

গত বছরের ১৮ অক্টোবর থেমে যায় ব্যান্ড তারকা ও গিটার লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চুর হৃৎস্পন্দন। শুক্রবার চোখের জলে তার জন্মদিন পালন করছেন ভক্তরা। এই প্রথম বিশেষ এই দিনে নেই তিনি।

১৯৬২ সালের এই দিনে চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বাচ্চু। ১৯৭৬ সালে কলেজজীবনে আগলি বয়েজ নামক ব্যান্ড গঠনের মাধ্যমে তার সংগীত জীবনের সূচনা করেছিল। এরপর ফিলিংস ও সোলসে যোগ দেন।

সুপার সোলস, কলেজের করিডোরে, মানুষ মাটির কাছাকাছি এবং ইস্ট অ্যান্ড ওয়েস্ট- সোলসের সঙ্গে এই চারটি অ্যালবামে কাজ করেন।

আইয়ুব বাচ্চু ১৯৯১ সালের ৫ এপ্রিল লিটল রিভার ব্যান্ড গঠন করেন, যা পরবর্তীকালে লাভ রানস ব্লাইন্ড নামে বা সংক্ষেপে এলআরবি নামে জনপ্রিয়তা লাভ করে। মৃত্যু পর্যন্ত ২৭ বছর ধরে ব্যান্ডটির সঙ্গে ছিলেন।

ব্যান্ডটির সঙ্গে অনেক জনপ্রিয় অ্যালবাম উপহার দেন বাচ্চু। এর মধ্যে আছে সুখ, ঘুমন্ত শহরে, স্বপ্ন, আমাদের বিস্ময় (ডাবল অ্যালবাম), মন চাইলে মন পাবে, অচেনা জীবন ও যুদ্ধ।

একক শিল্পী হিসেবেও তিনি সফল। আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম একক অ্যালবাম ‘রক্ত গোলাপ’ ১৯৮৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বের হয়। দ্বিতীয় অ্যালবাম ময়না (১৯৮৮) দিয়ে সফলতা অর্জন করেন এবং কষ্ট (১৯৯৫) ছিলো বাংলাদেশের অন্যতম হিট অ্যালবাম। ২০০১৭ সালে দেশে প্রথম বাদ্যযন্ত্রগত অ্যালবাম ‘সাউন্ড অফ সাইলেন্স’ প্রকাশ করেন।

গীতিকার ও সুরকার হিসেবেও সফল ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। গিটারিস্ট হিসেবে পেয়েছে কিংবদন্তির মর্যাদা। গিটার সংগ্রহ ছিল তার নেশার মতো, করেছেন প্রদর্শনীও।

আইয়ুব বাচ্চুর জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে রয়েছে- সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে, রূপালি গিটার, রাত জাগা পাখি হয়ে, কষ্ট পেতে ভালোবাসি, ফেরারি মন, মাধবী, এখন অনেক রাত, ঘুমন্ত শহরে, বারো মাস, হাসতে দেখো, এক আকাশের তারা ও উড়াল দেব আকাশে।


আরও পড়ুন