মাস্টারমাইন্ড তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির জন্য উচ্চ আদালতে যাব: কাদের

২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় তারেক রহমানকে মাস্টারমাইন্ড উল্লেখ করে তার সর্বোচ্চ বিচারের জন্য উচ্চ আদালতে যাবেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নির্মিত বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ২১ আগস্টের হামলায় জড়িত থাকার দায়ে তারেক রহমানের সর্বোচ্চ শাস্তির জন্য উচ্চ আদালতে যাওয়া হবে।  এ হত্যাকাণ্ড যারা সংগঠিত করেছিল, সেই হরকাতুল জেহাদের নেতা মুফতি হান্নানের জবানবন্দিতে উঠে এসেছে তারেকের নির্দেশনায় তারা এ অপারেশন পরিচালনা করেছিল। হত্যাকাণ্ডের বিচার হতে হলে এর মাস্টার মাইন্ডের সর্বোচ্চ বিচার হতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। আর ২০০৪ সালের আগস্টে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা বঙ্গবন্ধু কন্যাকে প্রাইম টার্গেট করে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে বোমা হামলা চালিয়ে সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে রক্তস্রোত বইয়ে দিয়েছিল বিএনপি-জামায়াত সরকার। ইতিহাসে দুটি এ ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে সরকার দল ও বিরোধী দলের যে কর্মসম্পর্ক থাকা দরকার তা এই দুইটি ঘটনার মধ্য দিয়ে নষ্ট হয়ে গেছে।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, এরপরও খালেদা জিয়াকে ৫ জানুয়ারি নির্বাচনকে সামনে রেখে গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। এরপরও আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা পুত্রহারা মাকে সান্ত্বনা দিতে তার বাড়িতে ছুটে গিয়েছিলেন। কী দুর্ব্যবহার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে করা হয়েছে! বাংলার মানুষ জানে। সেদিন প্রধানমন্ত্রীর মুখের ওপর দরজা বন্ধ করে দিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতিতে সংলাপের রাস্তায় বন্ধ করে দিয়েছে বিএনপি।

তিনি আরও বলেন, একুশে আগস্টের হত্যাকাণ্ডের বিচার আদালতে হয়েছে। এখন পেপারবুক তৈরি হচ্ছে, এরপর ডেথ রেফারেন্সের শুনানি হবে। বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কর্ম সম্পর্কে ওদের কথা যারা বলে, আমি বলবো, এর জন্য দায়ী বিএনপিই। ১৫ আগস্ট রক্তাক্ত ঘটনার মধ্য দিয়ে যেটা তারা তৈরি করেছে, তা ভুলে যাওয়া আমাদের পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব না।


আরও পড়ুন