জাতীয় - 2 weeks ago

উপজেলায় এমপিদের উপদেষ্টা থাকাটাই বাঞ্ছনীয়

উপজেলা পরিষদে সংসদ সদস্যদের উপদেষ্টা থাকার বিষয়টি বাস্তবতার সঙ্গে সংগতিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্যরা জনগণের কাছে দায়বদ্ধ। তারা এলাকার মানুষের দেখভাল করেন। তারা উপদেষ্টা থাকলে এলাকায় কাজের মান বাড়ে, আইন শৃঙ্খলার উন্নয়ন হয়। কাজেই আমি মনে করি, উপজেলায় এমপিদের উপদেষ্টা থাকাটাই বাঞ্ছনীয়।’

বুধবার জাতীয় সংসদে বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানার এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন।

রুমিন ফারহানার প্রশ্ন ছিল, উপজেলা আইনে এমপিদের উপদেষ্টা করে রাখা হয়েছে। এটি সংবিধানের ৫৯ ধারার সঙ্গে সাংঘর্ষিক। আইন সংশোধন করে এমপিদের উপদেষ্টা পদ বাদ দেওয়া হবে কিনা?

জাতীয় পার্টির মসিউর রহমান রাঙ্গার আরেক প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ‘আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসনে আর্সেনিক দূষণযুক্ত এলাকায় ২ হাজার ৩৯০টি রিংওয়েল বসানো হবে। প্রতিটি রিংওয়েল বসানোর জন্য তিন হাজার ৫০০ টাকা করে সহায়ক চাঁদা নেওয়া হবে।’

এম আবদুল লতিফের অপর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘সিটি করপোরেশনগুলোর জন্য মশা নিধন ও পরিচ্ছন্নতা খাতে ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির জন্য সাড়ে সাত কোটি টাকা করে চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর সিটির জন্য এক কোটি করে এবং খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, সিলেট, কুমিল্লা ও ময়মনসিংহ সিটির জন্য ৫০ লাখ টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।’

মামুনুর রশীদের প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা ওয়াসা রাজধানীর সব পাইপলাইন পরিবর্তন করে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে ডিএমএ (ডিস্ট্রিক্ট মিটারড এরিয়া) পদ্ধতি চালু করেছে। এর ফলে রাজধানীর কোথাও কোথাও পানির অপচয় ৫–৭ ভাগে নেমে এসেছে, যা আগে ৪০ ভাগ ছিল। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় এই প্রকল্পের কাজ প্রায় ৫০ ভাগ শেষ হয়েছে।’

মোরশেদ আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের শতকরা ৮৭ ভাগ মানুষ নিকটবর্তী উৎস থেকে নিরাপদ পানি সংগ্রহ করে। বর্তমানে নিরাপদ পানি সরবরাহের জন্য আট হাজার ৭৬৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩১টি প্রকল্প চালু রয়েছে। এ ছাড়া, সরকারি ও উন্নয়ন সহযোগীদের সহায়তায় ৪০ হাজার ৯৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে আরও ৪৫টি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য জমা দেওয়া হয়েছে।

হাজী সেলিমের আরেক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ঢাকা উত্তর সিটিতে ২৩টি পার্ক ও চারটি শিশুপার্ক রয়েছে। দক্ষিণ সিটিতে ১৯টি পার্ক রয়েছে। মন্ত্রী আরও জানান, ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে নিবন্ধিত রিকশার সংখ্যা ৫২ হাজার ৭১২টি। উত্তর সিটিতে ২৭ হাজার ৩৯৭টি। বর্তমানে চলাচল করা রিকশার কোনও পরিসংখ্যান নেই।


আরও পড়ুন