কুলিয়ারচর - সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯

কুলিয়ারচরে মিশুক রিক্সা চালকের লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ২

থানার সামনে নিহতের মায়ের আহাজারি

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে সাগর মিয়া (১৫) নামে এক মিশুক রিক্সা চালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলার বাজরা-চৌমুড়ি রাস্তার তারাকান্দি নামক স্থানে গোলাপ মিয়ার ধানক্ষেত সংলগ্ন এলাকা থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সাগর মিয়া পার্শ্ববর্তী বাজিতপুর উপজেলার আতকাপাড়া গ্রামের মৃত মোঃ ইদ্রিস মিয়ার ছেলে। সাগর হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে শনিবার বিকেলে বাজিতপুর পৌরশহরের রাবারকান্দি মহল্লার দুলাল মিয়ার ছেলে রিফাত (১৯) ও কাশেম মিয়ার ছেলে সুজন (১৮) কে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নিহত সাগরের মা আছমা (৩৬) ছেলের শোকে কাতর হয়ে বারবার মুর্ছা যাচ্ছে। কিছুটা সুস্থ হলে তিনি কুলিয়ারচর থানার সামনে আহাজারি করে সাংবাদিকদের বলেন, দু’বছর পূর্বে তার স্বামী মারা যান। অভাবের সংসারে তার মেজো ছেলে সাগর মিয়া মিশুক রিক্সা চালিয়ে সংসারের কিছুটা খরচ চালিয়ে আসছিল। রিফাত ও সুজন প্রায় সময় তার ছেলে সাগরের মিশুক রিক্সা রিজার্ভ ভাড়া নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরাঘুরি করে ভাড়া না দিয়ে পরে দিবে বলে চলে যেত। এভাবে সাগর ও সুজনের নিকট ২ হাজার টাকা ভাড়া জমার পর কিছু দিন পূর্বে সাগর তাদের নিকট বকেয়া ভাড়ার টাকা চাইলে তারা ক্ষিপ্ত হয়। পরবর্তীতে পরিকল্পিতভাবে সাগরকে হত্যার উদ্দেশ্যে গত বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে সাগরের মিশুক রিক্সা ভাড়া নেয় রিফাত ও সুজন । এর পর থেকে সাগরকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

২দিন পর শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) বেলা আড়াইটার দিকে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে সাগরের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সাগর হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে কুলিয়ারচর ও বাজিতপুর থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে রিফাত ও সুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রক্রিয়া চলছে।


আরও পড়ুন