ভুটানের বিপক্ষে বাংলাদেশের বড় জয়

নাবীব নেওয়াজ জীবনের জোড়া গোলে ভুটানের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে বড় জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। গোল পেয়েছেন রবিউল হাসান ও বিপলু আহমেদও। রবিবার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ভুটানকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেয় জেমি ডের শিষ্যরা।

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ের কাতার ও ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ পর পর। ১০ অক্টোবর ঢাকায় এশিয়ার পরাশক্তি কাতার ও ১৫ অক্টোবর কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। তার আগে ভুটানের বিপক্ষে দুটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। প্রীতি ম্যাচের মোড়কে যে ম্যাচ দুটিতে বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য কাতার ও ভারত ম্যাচের প্রস্তুতি।

প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে সেই উদ্দেশ্য শতভাগ পূরণ হলো বাংলাদেশ কোচের তা বলাই যায়। এই ম্যাচ থেকে সবচেয়ে বড় তৃপ্তি বোধ হয় এটাই- গোলের জন্য হাপিত্যেশ নয়, বরং রীতিমতো গোল উৎসব করল বাংলাদেশের ফুটবলাররা।

বৃষ্টির কারণে মাঠ ছিল ভারী। স্বাভাবিক খেলা তাতে ব্যাহত হয়েছে বেশ কিছুটা। তবে বাংলাদেশ দেখিয়েছে নিজেদের আধিপত্য। গত বছর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে এই মাঠেই দুই দল সর্বশেষ মুখোমুখি হয়েছিল। যে ম্যাচে ২-০ গোলে জয় পায় বাংলাদেশ।

২০১৬ সালে এশিয়ান কাপ ফুটবলের বাছাইয়ে এই ভুটানের কাছে হেরেই নির্বাসনে যেতে হলেও এদিন জয়টাই প্রত্যাশা ছিল সবার। দর্শকদের গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হয়নি খুব বেশি সময়। ম্যাচের ১২ মিনিটে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার ক্রস থেকে দারুণ এক হেডে দলকে এগিয়ে দেন জীবন।

৩৯ মিনিটে জীবনের দ্বিতীয় গোলটি ছিল আরো চোখ ধাঁধানো। ইব্রাহিমের ক্রস থেকে দারুণ ভলিতে বল জাড়ান তিনি। ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

বিরতির পর ম্যাচের ৫১ মিনিটে ব্যবধান কমান ভুটানের শেরিং দর্জি। তাতে ম্যাচে ফেরার বার্তাও যেন দিয়ে দেয় দলটি। কিন্তু রবিউল ও বিপলু সেই সুযোগ ভুটানকে দেননি।

৭৩ মিনিটে সোহেল রানার পাস থেকে গোল করেন বিপলু। এর সাত মিনিট পর সতীর্থ কে দিয়ে গোল করার বিপলু। তার দেওয়া পাস ধরে বল জালে জড়িয়ে দেন রবিউল।

এই জয়ের প্রভাব নিশ্চিতভাবেই পড়বে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে। দুই দল একই মাঠে দ্বিতীয় ও শেষ প্রীতি ম্যাচটি খেলবে ৩ অক্টোবর।


আরও পড়ুন