কিশোরগঞ্জে নেশাখোর ও বখাটেদের প্রতিরোধে জনতার হাতে লাটি মুখে বাঁশি নিয়ে পাহাড়া

কিশোরগঞ্জে নেশাখোর ও বখাটেদের প্রতিরোধে জনতার হাতে লাটি মুখে বাঁশি নিয়ে প্রতিদিন এলাকা পাহাড়া দিচ্ছে।

জানা গেছে কিশোরগঞ্জ শহরের হারুয়া এলাকায় নেশাখোর আর বখাটেদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকাবাসী এই উদ্যোগ নিয়েছেন। প্রতিদিনই নেশাখোর আর বখাটেদের অত্যাচারের কবলে পড়েন স্থানীয় এলাকার বাসিন্দারা। এলাকার বিভিন্ন বাসা বাড়িতে ও কিছু ভাড়াটেসহ মালিক পক্ষকে বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করে কিশোর গ্যাংয়ের বখাটেরা। তাদের অত্যাচারের হাত থেকে রক্ষা পেতে জেলা শহরের হারুয়া মানিক ফকিরের গলির গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং যুবকদের সমন্বয়ে গড়ে তোলেছে প্রতিরোধ ব্যবস্থা। রাতভর চলছে জনতার হাতে লাঠি ও মুখে বাশি নিয়ে পালাক্রমে পাহাড়া। এলাকাবাসী অপরাধ ঠেকাতে গড়ে তুলেছেন সমাজ উন্নয়ন সংস্থা নামক একটি সামাজিক সংগঠনও।

এলাকার বিভিন্ন ব্যক্তির সাথে কথা বলে জানা গেছে বাসা বাড়ির লোকজনের এ প্রতিরোধের পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলার রক্ষাকারী বাহিনীর সহয়তা প্রয়োজন। তাই দ্রুত আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপসহ প্রশাসনের সযোগিতা কামনা করেছেন ভূক্তভোগীরা।

হারুয়ার সমাজ উন্নয়ন সংস্থার কার্যকরি কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও কিশোরগঞ্জ জেলা পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, হারুয়া এলাকায় বেশ কয়েকটি হত্যাকান্ড সংঘটিত হওয়ায় ও বখাটেদের উশ্ঙখল আচরণে জনমনে আতংক বেড়ে যাওয়ায় প্রতিদিন হারুয়াবাসী রাত জেগে এই পাহাড়া দিচ্ছে। এলাকাবাসীর এই উদ্যোগে এবং জনগণের নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতা অত্যাধিক জরুরী।

প্রসঙ্গত জেলা শহরের হারুয়ায় গত শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে পুরাতন ফায়ার ব্রিগেড গলিতে জয়নব জান বিবি নামে একজন বৃদ্ধাকে হত্যা করেছে। এছাড়াও হারুয়ার বাসিন্দা কিশোরগঞ্জ সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাকিবুল হাসান রিয়াদ, মেধাবী কলেজ ছাত্র টগর, সাগর ও শুভলসহ আরও বেশ কয়েকটি হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে।


আরও পড়ুন