সিরিয়ায় ‘যেকোনো মুহূর্তে’ তুরস্কের অভিযান

সিরিয়ায় কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে নতুন করে সামরিক অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে তুরস্ক। সিরিয়া সীমান্তে ইতিমধ্যে তুর্কি সেনাবাহিনীর সাঁজোয়া যান মোতায়েন করার ছবি ও ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে।

রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি জানায়,  তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে অভিযানের ঘোষণার পর এই প্রস্তুতি শুরু করেছে দেশটির সেনাবাহিনী।

তুরস্কের টিভি চ্যানেল, সংবাদমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একাধিক ছবি ও ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, সিরিয়া সীমান্তে সাঁজোয়া যান ও সৈন্য সমাবেশ করেছে তুর্কি সেনাবাহিনী।

তুরস্ক সীমান্তে সিরিয়া অংশে একটি ‘সেফ জোন’ প্রতিষ্ঠার জন্য কুর্দিদের বিরুদ্ধে  আজ কিংবা আগামীকালের মধ্যে যে কোনো মুহূর্তে এই অভিযান চালানো হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন টিআরটি নিশ্চিত করেছে যে, সিরিয়ার তাল আবিয়াদ হয়ে সীমান্ত শহর আককালে অতিরিক্ত সেনা ও সাঁজোয়া যান পাঠানো হয়েছে। সীমান্তের আকাশে হেলিকপ্টারের উপস্থিতিও বৃদ্ধি পেয়েছে।

আঙ্কারা এবং ওয়াশিংটন আগস্টের শুরুতে উত্তর সিরিয়ায় বাস্তুচ্যুত সিরীয়বাসীদের প্রত্যাবাসনের জন্য একটি ‘পিস করিডর’ তৈরি করতে সম্মত হয়েছিল।

কিন্তু পরবর্তীতে তুরস্ক উপলব্ধি করে যে, ওয়াশিংটনের সঙ্গে এই পদক্ষেপ আঙ্কারার জন্য কোনো উপকার বয়ে আনবে না। বরং এই ‘সেফ জোন’  তৈরি সন্ত্রাসীদের পক্ষে যাবে।

তবে দামেস্কের দাবি, তুরস্ক এবং যুক্তরাষ্ট্রের তৎপরতা সিরিয়ার সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতার লঙ্ঘন। যদিও এই দাবি নাকচ করে দিয়ে গত বছর কুর্দি নিয়ন্ত্রিত সিরিয়ার আফরিনে অভিযান চালিয়েছিল তুরস্কে।


আরও পড়ুন