ঝিকরগাছায় সরকারি রাস্তা দখল, ভোগান্তিতে ১৫ পরিবার

ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়ায় সরকারি রাস্তা জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরপর দখলকৃত রাস্তার বেড়া দেয়ায় ১৫টি পরিবারের যাতয়াতের পথ বন্ধ হয়ে গেছে।

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগীরা।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ঝিকরগাছা উপজেলার হাজিরবাগ ইউপির মহেশপাড়া গ্রামের ইব্রাহীম হোসেনের পুত্র আবু মুছা ২০০১ সালের পর তার এক ভাইপো ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামানের সহযোগিতায় একটি সরকারি রাস্তা জোরপূর্বক দখল করে ঘিরে ফেলে। ফলে গ্রামের দিনমুজুর ১৫টি পরিবারের যাতায়াতের পথ বন্ধ হয়ে যায়।সেই সময় ভুক্তভোগী পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কাছে ধর্না দিয়েও কোন ফল পাইনি। বিষয়টি ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে গ্রামের আবুল হোসেন সরদারের ছেলে সিরাজুল ইসলাম উপজেলা নির্বাহী  অফিসারের নিকট অভিযোগ করেন।

এ অভিযোগের ভিত্তিতে সরকারি রাস্তাটি উন্মুক্তকরনের জোর দাবী ওঠে।অভিযোগের পর দখলকারীরা স্থানীয় এক প্রভাবশালীর মাধ্যমে হুমকি দিচ্ছে বলে সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন।

সরেজমিনে যেয়ে দেখা গেছে, হতদরিদ্র ১৫ টি পরিবারের পথ বন্ধ করে জিম্মি করার চিত্র। পরিবারগুলো একেবারে হত দরিদ্র। সাংবাদিক দেখা মাত্রই ছুটে এসে হাউমাউ করে কাঁদতে থাকে মাহফুজা নামে এক মহিলা।

তিনি জানান, সরকারি রাস্তা জোরপূর্বক দখল করে আমাদের জিম্মি করে রেখেছে। এলাকার মেম্বার চেয়ারম্যানদের বলেও কাজ হচ্ছে না।

আর এক মহিলা আছিয়া (৪০) জানান, আমরা অভিযোগ দিচ্ছি বলে অব্যাহত হুমকি দিচ্ছে মুছা ও তার জামাই হাতুরে ডাক্তার মনি সে আবার যুবলীগের আনারাশ মার্কা নেতা আমাদের ভিটে ছাড়ার হুমকি দিচ্ছে।

কথা হয় গ্রামের কয়েকজন মুরব্বীর সাথে, তারা অপকটে বলেছে রাস্তাটি সরকারিভাবে ম্যাপে আছে,কিন্তু সংশ্লিষ্ঠ বিভাগ কোন কর্ণপাত করে না।এ ব্যাপারে কথা হয় আবু মুছা ও মনিরের সাথে। তারা বলেন এ বিষয়ে পত্রিকায় লেখালেখি করে আমাদের কিছু করতে পারবে না এখন আমরা ক্ষমতায় আছি আমরা যা করবো তায় হবে।


আরও পড়ুন