দুই-তিন দিনের মধ্যে মৌসুমি বায়ুর বিদায়, কমতে পারে বৃষ্টিপাত

দেশে গত কয়েক দিন ধরেই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আজও (বৃহস্পতিবার) দেশের অধিকাংশ জায়গায় বৃষ্টি হয়। কোথাও কোথাও অতি ভারী বৃষ্টি হয়েছে। অক্টোবরে বা শরৎকালে এমন বৃষ্টিতে তৈরি হয়েছে বর্ষার আমেজ। তবে যে মৌসুমি বায়ুর কারণে এই বৃষ্টি হচ্ছে তা দুই-তিন দিনের মধ্যে বিদায় নিতে শুরু করবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। সেই সঙ্গে কমতে পারে বৃষ্টিপাত।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পরবর্তী দুই দিন থেকে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশ থেকে প্রশমিত হতে পারে। সেই সঙ্গে পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা বা শুক্র ও শনিবার বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি প্রবণতা কমতে পারে।

এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, ‘কাল (শুক্রবার) থেকে বৃষ্টি কমতে পারে। তবে রোববারের পর থেকে বৃষ্টি অনেকটাই কমে যাবে।’

মৌসুমি বায়ুর বিষয়ে ওমর ফারুক বলেন, ‘আর দুই-তিন দিন পর বাংলাদেশ থেকে মৌসুমি বায়ুর চলে যাওয়া শুরু হতে পারে। পুরো মৌসুমি বায়ু একদিনে বিদায় হবে না। আস্তে আস্তে হবে। প্রথমে উত্তরাঞ্চল থেকে বিদায় হবে, তারপর মধ্যাঞ্চল, এরপর দক্ষিণাঞ্চল থেকে বিদায় হবে মৌসুমি বায়ু।’

অন্যদিকে শুক্রবারের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; ঢাকা ও খুলনা বিভাগের কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের পূর্বাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

সারাদেশে শুক্রবার দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয় গোপালগঞ্জে ১৫৩ মিলিমিটার। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল সৈয়দপুরে ৩২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায় ২১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ঢাকায় বৃহস্পতিবার বৃষ্টি হয় ৩০ মিলিমিটার। ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৯ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শুক্রবার ঢাকায় সূর্য উঠবে ভোর ৫টা ৫৪ মিনিটে এবং ডুববে সন্ধ্যা ৫টা ৩৬ মিনিটে।


আরও পড়ুন