ভারতীয় ট্রলারে বোঝাই বাংলাদেশ জলসীমা, অভিযোগ জেলেদের

বরগুনার বিভিন্ন ঘাটে ঘুরে দেখা যায়, সাগরে ইলিশ ধরতে যাওয়া উপকূলীয় সব এলাকার জেলেদের ট্রলার ঘাটে অবস্থান করেছে। রবিবার গভীর রাত থেকে বাংলাদেশের জলসীমা ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ শুরু হলেও ভারতীয় জেলেদের দেশীয় জলসীমায় মাছ শিকার করতে দেখেছেন বাংলাদেশের জেলেরা। এমন অভিযোগ করেছেন সমুদ্র থেকে ফিরে আসা বরগুনাসহ উপকূলীয় একাধিক জেলেরা। 

দেশের জলসীমায় ইলিশ আহরণে নিষেধাজ্ঞা দিলেও পার্শ্ববর্তী দেশের জেলেরা বাংলাদেশের জলসীমানায় অবৈধভাবে প্রবেশ করে সরকারের নিষেধাজ্ঞা না মেনে বঙ্গোপসাগরসহ উপকূলীয় এলাকায় এসে মাছ শিকার করে নিয়ে যায়। এমন অভিযোগ তুলে বছরের পর বছর ধরে সরকারের কাছে এ গুলো বন্ধের দাবিতে উপকূলীয় মৎস্যজীবী ও মৎস্য ব্যবসার সঙ্গে জড়িত কয়েক হাজার শ্রমিক অংশ নিয়ে মানববন্ধন, সভা-সমাবেশ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন। কিন্তু কোনো কাজের কাজ হয়নি বলে জানিয়েছেন বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী। তিনি আরো বলেন বলেন, সারা বছরই ভারতীয় ট্রলার দেশীয় জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকার করে নিয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটকও হয়েছে ভারতীয় ট্রলার সহ জেলেরা।

মোস্তফা চৌধুরী আরো বলেন, ইলিশের নিষেধাজ্ঞার সময় আমাদের ট্রলার সাগরে যাতে না যায় সেজন্য কঠোর হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে সমিতির পক্ষ থেকে। অমান্য করলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে বলেও নোটিশ জারি করা হয়েছে। কিন্তু এ সময়ে ভারতের ট্রলার এসে বাংলাদেশ জলসীমায় মাছ শিকার করে নিয়ে যায়। এ বিষয়ে আমরা অনেকবার আন্দোলন সংগ্রাম করেছি। তাছাড়া প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের কাছেও একাধিকবার লিখিত ও মৌখিকভাবে অবহিতও করেছি।

গভীর সমুদ্র থেকে ফিরে আসা কালাম খান, আবদুল্লাহ, আ. রহিম, মো. ইউসুফ মাঝি, ফোরকানসহ একাধিক মাঝি বলেন, বাংলাদেশের জলসীমার মধ্যে ভারতীয় অসংখ্য ট্রলাকে মাছ শিকার করতে দেখা গেছে। আমরা শুধু দেখেই যাচ্ছি কোনো প্রতিবাদ করতে সাহস পাইনা। মা ইলিশ রক্ষার্থে এবং ইলিশ সম্পদ বৃদ্ধির স্বার্থে আমরা সরকারের নিষেধাজ্ঞা মেনে চলবো আর ভারতীয় জেলেদের নির্বিঘ্নে মাছ শিকার করে নিয়ে যাবে এটা হয়না। আমরা সরকারের কাছে দাবি  জানাচ্ছি যে, শুধু নিষেধাজ্ঞার সময় কেন সব সময়ই ভারতীয় জেলেরা বাংলাদেশি জলসীমায় এসে মাছ শিকার করতে না পারে সে ব্যপারে সরকারের কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে। 

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আবদুল মান্নান মাঝি ও সাধারণ সম্পাদক মো. দুলাল মাস্টার বলেন, আমরা সব সময়ই সরকারের নির্দেশনা মেনে চলি, কিন্তু ভারতের জেলেরা তো আমাদের সম্পদ ধরে নিয়ে যায়। আমরা ইতোপূর্বে বহুবার আন্দোলন সংগ্রাম করেছি। বিগত বছরের ন্যায় এ বছর যাতে নিষেধাজ্ঞার সময় ভারতের জেলেরা মাছ শিকার করতে না পারে এ ব্যাপারে সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে কোর্স কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের অপারেশন কমান্ডার লেফটেনেন্ট ওয়াশিম জানান, বাংলাদেশের জলসীমায় আমাদের টহল টিম কোস্টগার্ডের ভ্যাসেল অবস্থান করতেছে। কোন ভারতীয় জেলেদের বাংলাদেশ জলসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করলে তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।


আরও পড়ুন