কুষ্টিয়ায় মিস্ত্রি হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ায় বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি আলম শেখ হত্যা মামলায় তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও একবছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী এ রায় দেন। এসময় দুই আসামি জনাকীর্ণ আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- জেলার কুমারখালী উপজেলার দমদমা গ্রামের বাসিন্দা ইয়ার আলী (৪৮), শফিকুল ইসলাম (৪৩) এবং একই উপজেলার পলাতক আসামি বাগুলাট গ্রামের বাসিন্দা রেজাউল ইসলাম।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালের ৩ মার্চ রাতে বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি আলম শেখকে নারী ঘটিত কারণে পূর্ব শত্রুতার জেরে শ্বাসরোধ ও গলাকেটে হত্যার পর কুমারখালী উপজেলার বাগুলাট গ্রামের একটি মেহগনি বাগানে মরদেহ ফেলে যায় আসামিরা। খবর পেয়ে পরের দিন সকালে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার নিহতের স্ত্রী সবুরা খাতুন বাদী হয়ে চার জনের বিরুদ্ধে কুমারখালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ১৭ এপ্রিল আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যার দায়ে অভিযোগ এনে আদালতে চার্যশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করে পুলিশ।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, সাক্ষ্য ও শুনানি শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ওই তিনজনকে যাবজ্জীবন দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে মামলার অপর এক আসামি মোছা. কাজল রেখার নামে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে খালাস দেওয়া হয়েছে।


আরও পড়ুন