কুলিয়ারচরে ১০ বছরের শিশুর গায়ে গরম দুধ ঢেলে ঝলসে দেওয়ার অভিযোগ

‘বিচারের দাবীতে প্রশাসন ও মাতাব্বরদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছে মা’

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে সিয়াম নামে ১০ বছরের এক শিশুর শরীরে গরম দুধ ঢেলে ঝলসে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার (২৬ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার নোয়াগাঁও বেপারিপাড়া গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। সিয়াম নোয়াগাঁও বেপারিপাড়া গ্রামের সিএনজি চালক মানিক মিয়ার ছেলে।

সিয়ামের মা খোর্শেদা বেগম (৩৫) অভিযোগ করে বলেন, শনিবার বিকেলে সিয়াম পাশ্ববর্তী বাড়ির প্রবাসী সোলমান মিয়ার সীমানা থেকে বালু আনার অপরাধে সোলমান মিয়ার স্ত্রী শিল্পী বেগমের (৩৫) সাথে তাদের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শিউলি বেগম সিয়ামকে খুন করার উদ্দেশ্যে তার গায়ে গরম দুধ ঢেলে দেয়। এতে সিয়ামের শরীর ঝলসে যায়। সিয়ামের আর্তচিৎকার শুনে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে এসে সিয়ামকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সাথে সাথে কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত সিয়ামকে আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় বার্ন ইউনিটে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

সিয়ামের পরিবার জানান, টাকার অভাবে তাকে ঢাকায় নিয়ে যেতে পারছে না। এ ঘটনার পর থেকে সিয়ামের মা স্থানীয় মাতাব্বর, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও কুলিয়ারচর থানায় বিচারের দাবি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। একটি প্রভাবশালী মহল ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার পাঁয়তারা করছে বলেও জানান তার মা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিল্পী বেগমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সিয়ামের উপর গরম দুধ ঢেলে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সিয়ামের পরিবার তাদের বাড়িতে হামলা করে দু’জনকে মারধর করেছে।

এ ব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার সেকেন্ড অফিসার মুহাম্মদ আজিজুল হক জানান, আহত সিয়ামকে নিয়ে তার মা সোমবার বিকেলে থানায় এসেছিল, তাকে অভিযোগ নিয়ে আসার জন্য বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাউসার আজিজ বলেন, শিশুটিকে দেখেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও পড়ুন