দেশের খবর - নভেম্বর ১১, ২০১৯

রাস্তা পরিষ্কার করছেন পটুয়াখালীর এসপি

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় উদ্ধারকাজ শুরু করেছে পুলিশ। এরই মধ্যে বুলবুলের তাণ্ডবে ভেঙে পড়া গাছ রাস্তা থেকে অপসারণ, ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর মেরামত ও দুর্যোগকবলিতদের ত্রাণ দিয়েছে পটুয়াখালী জেলা পুলিশ।

রোববার (১০ নভেম্বর) সকাল থেকে সোমবার (১১ নভেম্বর) দুপুর পর্যন্ত পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মইনুল হাসানের নেতৃত্বে জেলার বিভিন্ন এলাকায় ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর মেরামত করে দেয়ার পাশাপাশি ত্রাণ দেয়া হয়।

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার চন্দ্রদীপ এলাকার বাসিন্দা অসহায় করিমন ভানু বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে আমার ঘর ভেঙে মাটিতে পড়ে যায়। রোববার বিকেলে পুলিশ এসে আমার ভাঙা ঘর তুলে দিয়েছে। আমার ভাঙা ঘরটি তুলে দেয়ার জন্য পুলিশের জন্য দোয়া করছি।

রাঙ্গাবালী উপজেলার বাসিন্দা সুশীল চন্দ্র বলেন, চোরের ভয়ে সাইক্লোন শেল্টারে যেতে চাইনি আমরা। পরে পুলিশ এসে জানায় পুলিশ সুপার আমাদের বাড়িঘরের নিরাপত্তায় থাকবেন। পরে আমরা সব কিছু রেখে সাইক্লোন শেল্টারে চলে যাই। সোমবার সকালে বাড়ি এসে দেখি পুলিশ আমাদের বাড়ির সামনে পাহারায় বসে আছে।

দুমকি উপজেলার বাসিন্দা সিহাব বিশ্বাস বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে রাস্তাগুলোতে প্রচুর গাছ ভেঙে পড়েছিল। সাইক্লোন শেল্টার থেকে ফেরার পথে দেখি ভেঙে পড়া গাছ কেটে রাস্তা পরিষ্কার করছেন পুলিশ সদস্যরা। ওই সময় পুলিশ সুপার স্যারও উপস্থিত ছিলেন। গাছ সরিয়ে পুলিশ সুপারকে রাস্তা পরিষ্কার করতে দেখে আমরা অবাক হয়েছি। পুলিশের এত বড় একজন কর্মকর্তা রাস্তায় কাজ করছেন ভাবতেই আশ্চর্য লাগে।

দশমিনা উপজেলার বাসিন্দা মোটরসাইকেল চালক রফিক মিয়া বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে সড়কের ওপর অনেক গাছ উপড়ে পড়ে যায়। রোববার বিকেলে রাস্তায় গিয়ে দেখি গাছ কেটে সড়কে যান চলাচল সচল করছে পুলিশ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান বলেন, বুলবুল মোকাবিলায় পরিকল্পনার অংশ হিসেবে দ্রুত ত্রাণ বিতরণ, চিকিৎসা সহায়তা ও সড়কে উপড়ে পড়া গাছ সরিয়ে যাতায়াত ব্যবস্থা সচল কার্যক্রম চালানো হয়। আগে থেকেই জেলার প্রতিটি থানায় বিশেষ টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল অতিক্রমের সঙ্গে সঙ্গে মাঠে নেমে যায় পুলিশের বিভিন্ন টিম। দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে পেরে আমরা আনন্দিত।

তিনি আরও বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে ভেঙে যাওয়া গাছ অপসারণ, ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর মেরামত, সুষ্ঠুভাবে ত্রাণ বিতরণ, সাধারণ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্র থেকে পুনরায় নিজ বাড়িতে নিরাপদে পৌঁছে দেয়া, আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা, হাসপাতালে ভর্তি ও সড়ক মেরামতসহ বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে পুলিশ। সুন্দরভাবে পুলিশ দায়িত্ব পালন করায় কোথাও কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেনি।


আরও পড়ুন