মুজিববর্ষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার আশ্বাস মোদির

জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ‌্যে ২০২০ সালে বছরব‌্যাপী আয়োজন ‘মুজিববর্ষ’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার আশ্বাস দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদর মোদি।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির চিফ অব মিডিয়া সেল নাসরীন জাহান লিপি এ তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা মৌখিকভাবে তাকে প্রস্তাব করেছি, তিনিও সম্মতি প্রদান করেছেন। আশা করছি তিনি বক্তব‌্য দেবেন। তবে বিষয়টি এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।’

এদিকে ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, এ অনুষ্ঠানে অন‌্যান‌্যদের মধ‌্যে মূল বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেবেন মোদি।

দুতাবাস সূত্র জানান, মুজিববর্ষের মূল আয়োজনে বক্তব‌্য রাখার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দাওয়াত দেন। নরেন্দ্র মোদি এ আমন্ত্রণ গ্রহণও করেছেন।

হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম বলেন, ‘অনুষ্ঠানে ভারতের কয়েকজন মুখ্যমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হবে। দিল্লি, কলকাতা ও আগরতলাতেও পৃথক অনুষ্ঠান হবে। এছাড়া অন্তত ৩৯ বিশ্বনেতাকে ঢাকায় আমন্ত্রণ জানানো হবে। তাদের অনেকে ইতোমধ্যে আসার জন্য সম্মতি জানিয়েছেন।’

বিশেষ এই আয়োজনে ভারত এরই মধ্যে কর্মসূচি পালন করার ঘোষণা দিয়ে রেখেছে। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এ বিষয়েও সবুজ সংকেত রয়েছে।

এদিকে, বাংলাদেশে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও নরেন্দ্র মোদি কর্তৃক অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত এই বছরকে ‘মুজিববর্ষ’ হিসেবে পালন করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ উপলক্ষে বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষণা করা হয়েছে ‘মুজিববর্ষ’। কর্মসূচি পালন করবে আওয়ামী লীগসহ সব শ্রেণিপেশার মানুষ।

এছাড়া ২০২১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করবে বাংলাদেশ। নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাঁকজমকপূর্ণভাবে বছরটি পালনের জন্য নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন শেখ হাসিনা।


আরও পড়ুন