টনের টন পেঁয়াজ ময়লার ভাগাড়ে

দেশের বাজারে পেঁয়াজের কেজি ২০০ টাকা ছাড়িয়েছে, আবার টনে টনে পঁচা পেঁয়াজ ময়লার ভাগাড়ে ফেলে দেয়া হচ্ছে। 

চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্যের বাজার খাতুনগঞ্জে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। গত দুই দিনে চট্টগ্রামের গুদামে মজুদ থাকা কমপক্ষে ২০ টন পঁচা পেঁয়াজ ময়লার ভাগাড়ে ফেলে দেয়া হয়েছে।

মূল্য বৃদ্ধির কারণে পেঁয়াজ বিক্রিতে রীতিমত ধস নেমেছে। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলছেন, পেঁয়াজের চাহিদা অস্বাভাবিকভাবে হ্রাস পেয়েছে। যে পরিবারে সপ্তাহে ১ থেকে ২ কেজি পেঁয়াজ লাগতো, তারা এখন আধা কেজিতেই প্রয়োজন মেটাচ্ছেন। 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদ আলম জানান, গত দুই দিনে খাতুনগঞ্জে কমপক্ষে ২০ টন পেঁয়াজ ময়লার ভাগাড়ে ফেলা হয়েছে। খাতুনগঞ্জের বিভিন্ন পেঁয়াজের গুদাম থেকে ব্যবসায়ীরা এ সব পঁচা পেঁয়াজ বস্তায় ভরে এনে ময়লার ভাগাড়ে ফেলছেন। 

নাম প্রকাশ না করে একাধিক পেঁয়াজ ব্যবসায়ী জানান, মিয়ানমার থেকে আমদানিকৃত পেঁয়াজ গুদামে রাখার দু’-একদিনের মধ্যে পঁচন ধরেছে। তবে ব্যবসায়ীরা স্বীকার না করলেও ধারণা করা হচ্ছে, বেশি দামে বিক্রির প্রত্যাশায় অতিরিক্ত সময় মজুদ করে রাখায় এসব পেঁয়াজে পঁচন ধরেছে।

সিটি কর্পোরেশনের একজন পরিচ্ছন্ন কর্মী মিঠুন দাশ জানান, খাতুনগঞ্জ এলাকার ময়লার ভাগাড় পরিষ্কার করতে গিয়ে দেখা গেছে, অসংখ্য পঁচা পেঁয়াজ। বৃহস্পতিবার রাতে এসব পেঁয়াজ বিভিন্ন গুদাম থেকে ফেলে দিয়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার রাত পর্যন্ত কমপক্ষে ২০ টন পঁচা পেঁয়াজ সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা অপসারণ করেছে। 


আরও পড়ুন