জঙ্গী ও উগ্রবাদ বিশ্বের সকল ধর্মের জন্য হুমকি স্বরুপ : ডিএমপির মনিরুল ইসলাম

অতিরিক্ত কমিশনার কাউন্টার টেররিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম, ডিএমপি ও প্রকল্প পরিচালক সিসিটিটিসিপিসি মোঃ মনিরুল ইসলাম (বিপিএম পিপিএম বার) বলেছেন জঙ্গী ও উগ্রবাদ বিশ্বের সকল ধর্মের শত্রু ও হুমকি স্বরুপ। সকলকে জঙ্গী ও উগ্রবাদ প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে।

কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশের সহযোগীতায় এবং বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পেরর অর্থায়নে বুধবার বিকেলে কিশোরগঞ্জ সার্কিট হাউজে উগ্রবাদ প্রতিরোধে গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভূমিকা শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধকের ভাষণে তিনি এ কথা বলেন।

জেলা প্রসাশক মোঃ সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ (বিপিএম বার), নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পারভেজ মিয়া, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান মামুন আল মাসুদ খান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম এ আফজালসহ জনপ্রতিনিধি, জেলা প্রিন্ট ইলেক্টনিক্স ও অনলাইন মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকগণ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, উলামায়ে কেরামগন, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিকদলের ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে উগ্রবাদ প্রতিরোধে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণের করণীয় শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনারের প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন তিনি। এতে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন – নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোঃ আব্দুল্লাহ্, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল ইসলাম সোপান ও ঢাকা হতে আগত ক্রাইম টেররিজমের এডিসি জাহাঙ্গীর হাসান। আলোচনা শেষে সভা শেষে সেমিনারের দ্বিতীয় পর্বে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন ঢাকা হতে আগত ক্রাইম টেরিরিজমের প্রশিক্ষক এডিসি জাহাঙ্গীর হাসান।

পুলিশ সুপার জানান, বাংলাদেশ সরকারের অঙ্গীকার “সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মুক্ত দেশ আমার” বাস্তবায়ন ও নির্মল করার লক্ষ্যে জনপ্রতিনিধিগনের অগ্রণী ভুমিকা প্রয়োজন, কারন একজন প্রতিনিধি নিজ এলাকায় প্রতিটি বাড়ীর প্রত্যেকটা মানুষের সাথে সম্পর্ক রয়েছে। পাঁচ দিনব্যাপী সেমিনারে পুলিশ বাহিনী শিক্ষক ও আলেম ছাত্র সমাজ জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়।


আরও পড়ুন